আমেরিকা বলতে যদিও আমরা এক কথায় আমেরিকার যুক্তরাষ্ট (USA) বুঝি। আসলে আমেরিকা মানে হল পুরো দুটো মহাদেশ, আলাস্কা-কানাডা থেকে চিলির দক্ষিণ প্রান্ত পর্যন্ত। তবু যেহেতু সহজ কথায় আমেরিকা বলতে যুক্তরাষ্ট্রকে বুঝি তাই এই তালিকায় শুধু যুক্তরাষ্ট্রে ভ্রমণের বই নিয়ে তালিকা করা হয়েছে।

বাংলা ভাষায় মনে হয় আমেরিকা ভ্রমণ কাহিনী সবচে’ বেশি লেখা হয়েছে। প্রতিথযশা বেশ কয়েকজন লেখক লিখেছেন, কারো ভ্রমণ কাহিনী, কারো প্রবাস জীবনের কাহিনী। তাই শুধু আলাদা করে আমেরিকা ভ্রমণ কাহিনী তালিকা করতে হল।

সারা পৃথিবী ভ্রমণের কাহিনী পড়ার অভিযাত্রার অংশ হিসেবে এই আমেরিকা ভ্রমণ কাহিনী তালিকা:

হুমায়ূন আহমেদের আমেরিকা:

১. হোটেল গ্রেভার ইন (১৯৮৯)

লেখকের আমেরিকায় পিএইচডি অধ্যয়ন জীবনের কাহিনী, ছাত্র জীবনের সংগ্রাম সহজ সরল ভাষায় লিখেছেন, শেষ না করে উঠা যায় না।

বইয়ের লিংক

২. মে ফ্লাওয়ার (১৯৯১)

হুমায়ূন আহমেদ আমেরিকাকে যে দৃষ্টিতে দেখেছেন তা উঠে এসেছে এই ভ্রমণ কাহিনীতে। আনাস হামজা বইটির রিভিওতে লিখেছেন- “লেখক আমেরিকান সমাজকে কাছ থেকে দেখা একজন মানুষ হিসেবে আমেরিকা সম্পর্কে তার মূল্যায়ন পেশ করেছেন এই বইয়ে। প্রাচ্যের চোখে আমেরিকা দেখতে গেলে অনেকের বেলায় যেটা মুগ্ধতায় গিয়ে ঠেকে, লেখকের বর্ণনা সেই মুগ্ধতা অতিক্রম করে সমালোচনা পর্যন্ত পৌঁছেছে। “

অন্য খবর  অস্ট্রেলিয়া ও নিউ জিল্যান্ড ভ্রমণ কাহিনীর বই

বইয়ের লিংক

৩. যশোহা বৃক্ষের দেশে (১৯৯৪)

“আমাদের চোখে বিষম অদ্ভুত আমেরিকান জাতির বিচিত্র জীবন পদ্ধতি তাঁর অনেক লেখাতেই ঘুরে ফিরে এসেছে। এ বইটি আমেরিকা সংক্রান্ত তাঁর পূর্ব অভিজ্ঞতার একরকম বর্ধিত অংশ বলা চলে। ছোট ছোট অধ্যায়ে বর্ণনা করেছেন সপরিবারে আমেরিকা ভ্রমণের অভিজ্ঞতা, যে আমেরিকা তাঁর ছাত্রাবস্থার আমেরিকা থেকে অনেকটাই পাল্টে গেছে এক যুগের ব্যবধানে।”

বইয়ের লিংক

৪. পায়ের তলায় খড়ম (২০১২)

এক বইয়ে ছোট ছোট গল্পের মত কয়েকটি ভ্রমণ কাহিনী, এর মধ্যে আমেরিকা ভ্রমণও আছে।

বইয়ের লিংক

৫. সবগুলো বই এক বইয়ে: ভ্রমণসমগ্র

আরও লেখকদের বই:

৬. চলে মুসাফির

লেখক: জসীম উদদীন
বইয়ের লিংক

পঞ্চাশের দশকের আমেরিকা ভ্রমণ কাহিনী, একই সাথে পাকিস্তান, বাহরাইন, লন্ডন ভ্রমনের স্মৃতি আছে।

৭. বাঙালের আমেরিকা দর্শন

লেখক: শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়
বইয়ের লিংক

৮. হাওয়াই থেকে লিখছি

লেখক: মোহাম্মদ হারুন-উর-রশিদ
বইয়ের লিংক

এক সময় হাওয়াই স্বাধীন দেশ ছিল। আমেরিকার সাথে অঙ্গীভূত না হলে আলাদা দেশ হিসেবে হাওয়াই ভ্রমণ কাহিনী আলামারিতে স্থান পেত। আর ভ্রমণের সময় ১৯৭৬, অর্থাৎ বইটি একটি সময়ের ধারক! এসব কারনে এই বইটি তালিকার “স্পেশাল মেনশন”। বাংলায় হাওয়াই ভ্রমণ কাহিনী তেমন একটা নেই, কারণ বাঙালি সেখানে গিয়েছেই কম। এই বইয়ে আমেরিকার মূল ভূখণ্ড ভ্রমণের কিছু বিবরণ আছে, লেখক অত্যন্ত সহজ সরল ভাষায় তুলে ধরেছেন সে দেশের সাংস্কৃতিক বৈচিত্রকে। 

অন্য খবর  চীন ভ্রমণ কাহিনির বই

৯. পৃথিবীর পথে বাংলাদেশ: সাইকেলে আলাস্কা থেকে টরোন্টো

লেখক: মুনতাসির মামুন
বইয়ের লিংক

আলাস্কা আগে রাশিয়ার অংশ ছিল। ১৮৬৭ সালে রাশিয়ার কাছ থেকে কিনে নেয় ও  ১৯৫৯ সালে আলাস্কা আমেরিকার ৪৯ তম অঙ্গরাজ্য হিসেবে অন্তর্ভুক্ত হয়। উত্তর মেরুর কাছে সেই দূরতম প্রান্তে একজন বাংলাদেশী সাইকেল চালিয়ে পাড়ি দিয়েছিলেন শত শত মাইল, সেই কাহিনী এই বই। এই বই দিয়ে অবশ্য কানাডাও পূরণ হবে।

 ১০. স্বপ্ন ও স্বপ্নভঙ্গের দেশে

লেখক: আনিসুল হক
বইয়ের লিংক

১১. আমেরিকা

লেখক: মুহম্মদ জাফর ইকবাল
বইয়ের লিংক

১২. দেশের বাইরে দেশ

লেখক: মুহম্মদ জাফর ইকবাল
বইয়ের লিংক

১৩. ফ্লোরিডায় আদিবাসীদের মিউজিক মজমা

লেখক:মঈনুস সুলতান
বইয়ের লিংক

এই ভ্রমণ-উপাখ্যান যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের একটি শহর সংলগ্ন প্রকৃতি-নিবিড় উপবনের। আদিবাসীদের নৃত্যগীতের মাইফিলের পুঙ্খানুপুঙ্খ বর্ণনায় লেখক উপস্থাপন করেন আমেরিকার আদিবাসী কৌমের সাংস্কৃতিক জীবনের চিত্রাবলি। তাদের ঐতিহ্যসংক্রান্ত তথ্যের সাথে যুক্ত হয়েছে এক কালে আদিবাসীদের জোরপূর্বক বাস্তুহারা করে নির্বাসনে পাঠানোর মর্মস্পর্শী বিবরণ।

১৪. সাত সাঁতার

লেখক: জহুরুল হক

এই বইটা মামা বিদ্যালয়ে পুরস্কার পেয়েছিলেন। নানা বাড়ির বাশের বুক শেলফে অসংখ্যবার বইটা নেড়েছি, কখনও এক লাইন পড়ি নি। তখন এই বই পড়ার বয়সও ছিল না। কিন্তু আজ যখন অধীর আগ্রহে পড়ার জন্য খুঁজছি, কিন্তু কোনো প্রকাশনী এখন আর বইটি প্রকাশ করে না!

অনেকগুলো বই, যে কোনো একটি দিয়েই আপনার আমেরিকা পূরণ হবে। তবে এই তালিকার সবগুলো বই-ই পড়তে পরামর্শ দিব, শুধু পায়ের তলায় খড়ম আবশ্যক নয়।

সংকলক: পারভেজ রবিন

আপনার মতামত দিন