দোহারে প্রশাসনের অভিযানে সাতটি বাইক জব্দ

148

দোহার উপজেলায় সরকারি নিষেধাজ্ঞা ও স্বাস্থ্যবিধি অমান্য করায় ২৩টি মামলায় ২৩ জনকে অর্থদণ্ড প্রদান করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। শনিবার(৭আগষ্ট) সরকার ঘোষিত কঠোর লকডাউনে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত দোহার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এএফএম ফিরোজ মাহমুদ নাঈম ও
সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও মো. ফজলে রাব্বি আলাদাভাবে এই ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।
ইউএনও এএফএম ফিরোজ মাহমুদ নাঈম ও এসি ল্যান্ড ফজলে রাব্বি সরকার ঘোষিত করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে এবং কঠোর লকডাউন বাস্তবায়নে দোহার উপজেলার জয়পাড়া আয়োজন মোড়, থানার মোড়,মেঘুলা বাজার ও নারিশা এলাকাসহ বিভিন্ন পয়েন্টে দোকানপাট ও গণপরিবহন বন্ধ নিশ্চিত করতে এবং স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে অভিযান পরিচালনা করেন।সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য ও স্বাস্থ্য বিধি অমান্য করে অযথা বাহিরে বের হওয়ার কারনে ২৩ জনকে ভ্রাম্যমাণ আদালত ১৬ হাজার ৫০০ টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করেন। কঠোর লকডাউন বাস্তবায়নে সকাল থেকেই মাঠে কাজ করছেন দোহার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এএফএম ফিরোজ মাহমুদ, দোহার উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. ফজলে রাব্বি,দোহার থানার পুলিশ, সেনাবাহিনী, বিজিবি ও উপজেলা আনসার সদস্যগণ।

অন্য খবর  দোহারে চার ব্যবসায়ীকে অর্থদন্ড

দোহার উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. ফজলে রাব্বি জানান, ড্রাইভিং লাইসেন্স না থাকার কারনে আজকে আমরা সাতটি বাইক জব্দ করি এবং এই বাইকগুলো আমরা থানা হেফাজতে রাখেছি। লকডাউন বাস্তবায়নে উপজেলা প্রশাসন কঠোর অবস্থানে রয়েছে এবং এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।

আপনার মতামত দিন