ক্ষুধা-দারিদ্র্যমুক্ত সমাজ গড়তে কাজ করুনঃ শীতবস্ত্র বিতরন কালে সালমা ইসলাম

371
ক্ষুধা-দারিদ্র্যমুক্ত সমাজ গড়তে কাজ করুনঃ শীতবস্ত্র বিতরন কালে সালমা ইসলাম

ক্ষুধা-দারিদ্র্যমুক্ত সমাজ গড়তে সবাইকে আহ্বান জানিয়েছেন ঢাকা-১ আসন দোহার-নবাবগঞ্জের সংসদ সদস্য, সাবেক মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী এবং জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম। আপনাদের ভাগ্যের চাকা ঘোরাতে নিজেরা পরিশ্রম করুন। তাহলে সমাজ থেকে অভাব দূর হবে। বৃহস্পতিবার ঢাকার নবাবগঞ্জের বিভিন্ন ইউনিয়নে শীতবস্ত্র বিতরণের সময় তিনি একথা বলেন।

এসময় সালমা ইসলাম আরও বলেন, জনসাধারণের কল্যাণে নিবেদিত হয়ে কাজ করতে হবে। তাদের কাছে যেতে হবে। তবেই আমরা জনসাধারণের মনে স্থান করে নিতে পারব। পৌঁছাতে পারব আমাদের মূল লক্ষ্যে। এ সমাজে অসংখ্য দরিদ্র-অসহায় মানুষ বাস করেন। তাদের বিভিন্ন সামাজিক সমস্যা, সুখে ও দুঃখে পাশে দাঁড়াতে হবে- তবেই দরিদ্র জনসাধারণের দুঃখ-কষ্ট লাঘব হবে।

তিনি উপস্থিত জনতার উদ্দেশে বলেন, আপনার সন্তানকে শিক্ষিত মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। সম্ভব হলে তাদের হাতে-কলমে কারিগরি শিক্ষায় শিক্ষিত করে গড়ে তুলতে হবে। তাহলে আপনার সন্তান আগামী দিনে রাষ্ট্রের সুনাগরিক হিসেবে ও দেশের সম্পদ হিসেবে গড়ে উঠবে। তখন সে দেশের উন্নয়নে অংশ নেবে। তবেই সন্ত্রাস, দুর্নীতি ও হতাশামুক্ত একটি নিরাপদ দেশ জাতি উপহার পাবে। ঘরে বসে না থেকে নারীদের পশু পালন, সেলাই প্রশিক্ষণ ও সবজি উৎপাদনে এগিয়ে আসতে হবে। তবে দেখবেন সংসার ও সমাজ থেকে অভাব-অনটন দূর হয়ে যাবে।

অন্য খবর  পুলিশে চাকরি পেল নবাবগঞ্জের ৩৪ তরুণ-তরুণী

সালমা ইসলাম বলেন, আমার রাজনীতির মূল লক্ষ্য হচ্ছে মানুষের ও দেশের উন্নয়নে সবাইকে সঙ্গে নিয়ে কাজ করা। আসুন, আমরা দলীয় ভেদাভেদ ভুলে দল-মতের ঊর্ধ্বে এসে দুস্থ শীতার্তদের পাশে দাঁড়াই। তিনি জনতাকে উদ্দেশ করে বলেন, দোহার ও নবাবগঞ্জে অসচ্ছল মানুষের কথা চিন্তা করে আমার স্বামী বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলামের সার্বিক সহায়তায় বিগত ৯ বছর ধরে শীতে কম্বল বিতরণ করে আসছি। যাতে শীতবস্ত্রের অভাবে আপনারা কেউ কষ্ট না পান।

এ সময় সংসদ সদস্য সালমা ইসলাম তার নিজস্ব অর্থায়নে প্রতিটি ইউনিয়নে প্রায় ১ হাজার করে কম্বল বিতরণ করেন। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে বান্দুরা, নয়নশ্রী, বারুয়াখালী, শিকারীপাড়া ও জয়কৃষ্ণপুরের অসহায় পরিবারের মাঝে কম্বল বিতরণ করেন। তিনি ৩ দিনে নবাবগঞ্জের ১৪টি ইউনিয়নে প্রায় ১৫ হাজার কম্বল বিতরণ করেন।

উপস্থিত ছিলেন শিকারীপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান আলীমোর রহমান পিয়ারা, বারুয়াখালীর ইউপি চেয়ারম্যান আরিফুর রহমান শিকদার, জয়কৃষ্ণপুরের ইউপি চেয়ারম্যান মাসুদুর রহমান, জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা খন্দকার নুরুল আনোয়ার বেলাল, ঢাকা জেলা যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জুয়েল আহমেদ, মুক্তিযোদ্ধা মোশারফ হোসেন দিলু প্রমুখ।

অন্য খবর  দেশ স্বাধীন হলেও অর্থনৈতিক মুক্তি মেলেনিঃ সালমা ইসলাম

Comments

comments