মূল বিষয়বস্তুতে যান

আপনি এখানে

Ad:youngjournalist

younjournalist

জর্দানের নতুন সরকারের কঠোর সমালোচনা করলো ইসলামপন্থীরা

শুক্র, 05/04/2012 - 16:28

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ♦ জর্দানের ইসলামপন্থী দলগুলো সে দেশের নতুন সরকারের কঠোর সমালোচনা করেছে। নতুন সরকার গঠিত হওয়ার একদিন পর এ সমালোচনা করা হলো। জর্দানের প্রভাবশালী রাজনৈতিক দল মুসলিম ব্রাদারহুডের মুখপাত্র জামিল আবু বকর বলেছেন, নতুন সরকার সংস্কারের পথে বাধার সৃষ্টি করবে।
তিনি আরো বলেন,সরকার এবং প্রধানমন্ত্রী তাদের মনোভাবের প্রমাণ দিয়েছেন। এ সরকার বা প্রধানমন্ত্রী জর্দানে রাজনৈতিক পরিবর্তন ঘটাবে জনমনে তেমন আশা সৃষ্টি করতে পারেননি; প্রধানমন্ত্রী নিজে মান্ধাতা আমলের দৃষ্টিভঙ্গি পোষণ করছেন এবং রাজনৈতিক সংস্কার নিয়ে তার দৃষ্টিভঙ্গি জর্দানের সবারই জানা আছে।
জর্দানের বাদশাহ দ্বিতীয় আবদুল্লাহ গতকাল প্রধানমন্ত্রী ফাইয়াজ তারাওনেহ'র নেতৃত্বাধীন ৩০ সদস্যের নয়া মন্ত্রিসভার শপথ গ্রহণ করিয়েছেন। ফাইয়াজ তারাওনেহ ১৯৯০ এর দশকে দেশটির প্রধানমন্ত্রী এবং জর্দানের রাজ সভার প্রধান ছিলেন। তিনি ইসরাইলের সঙ্গে আলোচনায় জর্দানের নেতৃত্ব দিয়েছেন এবং ১৯৯৪ সালে এই আলোচনার ভিত্তিতেই ইসরাইলের সাথে জর্দান কথিত শান্তি চুক্তিতে স্বাক্ষর করে।
মুসলিম ব্রাদার হুডের রাজনৈতিক অঙ্গ সংগঠন ইসলামিক অ্যাকশন ফ্রন্টের প্রধান হামজা মানসুর বলেছেন, তারাওনেহকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দেয়ায় এটা সুস্পষ্ট যে, দেশে রাজনৈতিক সংস্কারের কোনো সম্ভাবনা নেই।
কয়েকজন প্রবীণ কর্মকর্তাকে নিয়ে একটি সেকেলে ধাঁচের সরকার গঠন করা হয়েছে উল্লেখ করে তিনি আরো বলেন, জর্দানে এখন এমন এক সরকার দরকার যা জনগণের আস্থাভাজন হবে এবং তাদের দাবি মেনে নিবে।
আরব বিশ্বে ইসলামী জাগরণের পথ ধরে জর্দানে ২০১১ সালের জানুয়ারির পর থেকে প্রায় প্রতি সপ্তাহে ব্যাপক সংস্কার ও দুর্নীতি বিরোধী কঠোর অভিযানের দাবিতে বিক্ষোভ হচ্ছে। রাওনেহ'কে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগের বিরুদ্ধে গত শুক্রবার আম্মানের কেন্দ্রস্থলে শত শত মানুষ বিক্ষোভ করেছে। বিক্ষোভকারীরা বলেছেন, তারা সরকার নয় নীতি পরিবর্তনের দাবিতে আন্দোলন করছেন।

শ্রেণীবিভাগ: 

Premium Drupal Themes by Adaptivethemes