শীতার্তদের সহায়তা সওয়াবের কাজ

5
শীতার্তদের সহায়তা সওয়াবের কাজ

প্রচণ্ড শীতে কাঁপছে বাংলাদেশ। বিশেষ করে গরিব-দুঃখীরা বিপদে পড়েছেন, তাদের দুঃখ-কষ্ট বেড়েছে। এ পরিস্থিতিতে অসহায় শীতার্ত মানুষকে সহায়তা করা আমাদের একান্ত প্রয়োজন।

হজরত আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, রসুল (সা.) ইরশাদ করেছেন, ‘বান্দা যতক্ষণ তার ভাইকে সাহায্য করবে, মহান আল্লাহ ততক্ষণ তাকে সাহায্য করতে থাকবেন।’ (মুসলিম)

এ হাদিসের ব্যাখ্যায় বিশেষজ্ঞরা বলেন, বান্দা যেভাবে ভাইয়ের বিপদে সাহায্যকারী হয়েছে, আল্লাহও তার বিপদে দুনিয়া-আখেরাতে উত্তম সাহায্যকারী হবেন। মানবসেবায় নিজেকে সাধ্যমতো উৎসর্গ করা ধর্ম ও মানবিকতার দৃষ্টিতে অত্যন্ত মর্যাদাপূর্ণ কাজ।

হজরত আবদুল্লাহ ইবনে ওমর (রা.) থেকে বর্ণিত, রসুল (সা.) ইরশাদ করেছেন, ‘যে ব্যক্তি মানবসেবায় তার ভাইয়ের সঙ্গে চলে, ওই কাজ না করা পর্যন্ত আল্লাহ ৭৫ হাজার ফেরেশতা দিয়ে তাকে ছায়াদান করেন। তারা তাঁর রহমত মাগফেরাতের জন্য দোয়া করতে থাকে। তার প্রতি কদমে একটি গুনাহ মাফ হয় এবং একটি মর্যাদা বৃদ্ধি পায়।’ (আত তারগিব)

অন্য হাদিস শরিফে আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, রসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, মহান আল্লাহতায়ালা বলেন, হে আদম সন্তান! তুমি ব্যয় কর, আমিও তোমার প্রতি ব্যয় করব।’ (বুখারি, হাদিস : ৫৩৫২)।

অন্য খবর  দোহারে সেজেছে কৃষ্ণচূড়ার রঙে

গরিব-দুঃখীদের জন্য ব্যয় করা সম্পদ কমে যাওয়া নয় বরং এটা সৌভাগ্যের ব্যাপার। শীতের কারণে শীতার্তদের সর্দি-কাশি ঠান্ডাজনিত নানা ধরনের রোগব্যাধি আক্রান্ত করছে। অনেকে প্রয়োজনীয় ওষুধপত্রের অভাবে তারা নিজেরা নিজেদের পরিবার আত্মীয়স্বজনকে ভালো চিকিৎসা করাতে পারছেন না। তাই জরুরি ভিত্তিতে শীতার্তদের প্রয়োজনীয় গরম কাপড়, লেপ কম্বলসহ ত্রাণসহায়তা, শুকনা খাদ্যসামগ্রী প্রদান, আর্থিক সাহায্য-সহযোগিতা ও চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করার জন্য ব্যবস্থা গ্রহণ করাটা একান্ত জরুরি।

লেখক : ইমাম খতিব, মনিপুর বায়তুল আশরাফ (মাইকওয়ালা) জামে মসজিদ, মিরপুর, ঢাকা

আপনার মতামত দিন