বাংলাদেশ সৌদিআরবে যৌথ সার কারখানা স্থাপন করবে: সালমান এফ রহমান

43

শরিফ হাসান, স্টাফ রিপোর্টার, news39.net:
সৌদি সফররত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান জানিয়েছেন, দেশে কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে সৌদি আরবে ইউরিয়া সার কারখানা স্থাপন করতে চায় বাংলাদেশ সরকার। এ জন্য সৌদি আরবের সহযোগিতা চেয়েছে বাংলাদেশ। দেশটির বাণিজ্য ও মিডিয়াবিষয়ক মন্ত্রী মাজিদ বিন আবদুল্লাহ আল কাসাবির সঙ্গে এ বিষয়ে আলোচনা করেছেন।

বৈঠকে সালমান এফ রহমান যৌথ মালিকানায় সৌদি আরবে প্রস্তাবিত ইউরিয়া সার কারখানা স্থাপনের বিষয়ে সৌদি বাণিজ্যমন্ত্রী মাজিদ বিন আবদুল্লাহর কাছে সহযোগিতা কামনা করেন। দুই দেশের মধ্যে বিদ্যমান চমৎকার সম্পর্কের উল্লেখ করে এ কারখানা স্থাপনের বিষয়ে সম্ভাব্য সব রকম সহযোগিতার আশ্বাস দেন দেশটির বাণিজ্যমন্ত্রী।

উপদেষ্টা সালমান এফ রহমানের সঙ্গে আব্দুল রহমান আল-ফাগীর বৈঠকে প্রস্তাবিত ইউরিয়া সার কারখানা স্থাপন-সংক্রান্ত একটি ‘কনসেপ্ট নোট’ উপস্থাপন করা হয়। প্রধান নির্বাহী এ প্রস্তাবকে স্বাগত জানিয়ে এ বিষয়ে পরবর্তী কার্যক্রম গ্রহণে সম্মতি দেন। সালমান এফ রহমান কটন-বেজড তৈরি পোশাকশিল্পে বাংলাদেশের সক্ষমতা উল্লেখ করে আর্টিফিশিয়াল ফেব্রিক তৈরিতে সৌদি বেসিক ইন্ডাস্ট্রিজ করপোরেশন (সাবিক) এবং বাংলাদেশের ব্যবসায়ীদের মধ্যে সম্ভাব্য কৌশলগত ব্যবসায়িক সম্পর্ক স্থাপনের বিষয়টি উপস্থাপন করলে প্রধান নির্বাহী সে ব্যাপারেও একমত হন।

অন্য খবর  সব শঙ্কা দূর করে জয়পাড়া কলেজের ছাত্র সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত

বৈঠকে বাংলাদেশ থেকে ২১৩টি পণ্যের সৌদি আরবে শুল্কমুক্ত প্রবেশে সহায়তা কামনা করেন সালমান এফ রহমান। এ বিষয়ে সহযোগিতার আশ্বাস দেন বাণিজ্যমন্ত্রী মাজিদ বিন আবদুল্লাহ।

মঙ্গলবার বাণিজ্যমন্ত্রী মাজিদ বিন আবদুল্লাহ ও সৌদি বেসিক ইন্ডাস্ট্রিজ করপোরেশনের (সাবিক) প্রধান নির্বাহী আব্দুল রহমান আল-ফাগীর সঙ্গে পৃথক বৈঠক করেন সালমান এফ রহমান। উপদেষ্টার দপ্তর থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।

আগামী ১১ থেকে ১৩ই মার্চ ঢাকায় অনুষ্ঠিতব্য বাংলাদেশ বিজনেস সামিটে সৌদি আরবের বাণিজ্যমন্ত্রীর বাংলাদেশ সফর নিয়েও বিস্তারিত আলোচনা হয়। বাংলাদেশ বিজনেস সামিটে সরকারি-বেসরকারি ও ব্যবসায়ী প্রতিনিধি সমন্বয়ে একটি বড় প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেবেন বাণিজ্যমন্ত্রী।

বৈঠকে সৌদি আরবে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারীসহ দূতাবাসের অন্য কর্মকর্তারা অংশগ্রহণ করেন।

আপনার মতামত দিন