বন্ধ হয়ে গেল বিশ্বের সবচেয়ে পুরানো পত্রিকা

16
বন্ধ হয়ে গেল বিশ্বের সবচেয়ে পুরানো পত্রিকা

বিশ্বের সবচেয়ে পুরানো জাতীয় পত্রিকা অস্ট্রিয়ার উইনার জাইটুং তাদের সর্বশেষ দৈনিক সংস্করণ ছেপেছে। এর মধ্য দিয়ে ৩২০ বছরের পুরানো এই জাতীয় পত্রিকার মুদ্রণ বন্ধ হয়ে গেল।

উইনার জাইটুং কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, মুদ্রণ বন্ধ হয়ে গেলেও অনলাইন সংবাদ প্রকাশ করবে তারা। একই সঙ্গে এক মাস পর পর একটি মুদ্রিত সংস্করণও প্রকাশ করা হবে। তবে এসব নিয়ে বিস্তারিত কোনো তথ্য এখনো জানানো হয়নি। কীভাবে কী করা হবে, তার পরিকল্পনা করা হচ্ছে।

গত এপ্রিলের শেষে অস্ট্রিয়ার পার্লামেন্টে একটি আইন পাস করে ভিয়েনাভিত্তিক এই সংবাদপত্রের মুদ্রণ বন্ধ করে অনলাইনে প্রকাশ করার সিদ্ধান্ত হয়। এতে পত্রিকাটির মুদ্রিত সংস্করণ প্রকাশ অলাভজনক হয়ে পড়ে। আইন অনুযায়ী, গত শুক্রবার পত্রিকাটির শেষ মুদ্রণ প্রকাশ করা হয়। খবর- দ্য গার্ডিয়ান‘র।

পার্লামেন্টের সিদ্ধান্তের ফলে উইনার জাইটুং–এর মুদ্রিত সংস্করণে অর্থের বিনিময়ে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ঘোষণা প্রকাশের বাধ্যবাধকতা উঠে যায়। এতে সরকারি প্রকাশনার মার্যাদা হারায় এটি।

মুদ্রিত সংস্করণ বন্ধে পার্লামেন্টে আইন পাসের পর পত্রিকাটি ব্যাপক লোকসানের মুখে পড়ে। এক ধাক্কায় এর আয় প্রায় দুই কোটি মার্কিন ডলার কমে যায়। আয় কমে যাওয়ার কারণে পত্রিকাটি তাদের ৬৩ জন কর্মী ছাঁটাই করে। একই সঙ্গে সম্পাদকীয় বিভাগের কর্মী ৫৫ থেকে কমে হয় ২০।

অন্য খবর  টি-টোয়েন্টি-২০২৪ বিশ্বকাপের তারিখ ঘোষণা

১৭০৩ সালে প্রকাশিত পত্রিকাটির নামকরণ করা হয় উইনারিসেস ডায়ারিয়ামের নামানুসারে। ১৭৮০ সালে উইনার জাইটুং নামকরণ করা হয়। ১৮৫৭ সালে তৎকালীন সম্রাট ফ্রানজ জোসেফের শাসনামলে পত্রিকাটি রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন হয়। এটি ছিল অস্ট্রিয়ার প্রথম সরকারি দৈনিক পত্রিকা।

ইউরোপীয় কমিশনের (ইইউ) ভাইস প্রেসিডেন্ট ভেরা জুরোভা অস্ট্রিয়ান নিউজ এজেন্সিকে (এপিএ) এ বিষয়ে বলেন, ‘পত্রিকাটির বর্তমান পরিস্থিতিতে তিনি খুশি নন।’

তিনি আরও বলেন, ‘বছরের পর বছর ধরে মানুষকে তথ্য সরবরাহের ক্ষেত্রে উইনার জাইটুং গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে।’

গত এপ্রিলে আইন পাস করে শতাব্দীপ্রাচীন এ পত্রিকা ছাপানো বন্ধে সরকারি সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে সে সময় অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনার রাস্তায় নেমে শত শত মানুষ বিক্ষোভ করেছিলেন।

বিশ্বের সবচেয়ে পুরানো জাতীয় পত্রিকা অস্ট্রিয়ার উইনার জাইটুং তাদের সর্বশেষ দৈনিক সংস্করণ ছেপেছে। এর মধ্য দিয়ে ৩২০ বছরের পুরানো এই জাতীয় পত্রিকার মুদ্রণ বন্ধ হয়ে গেল।

আপনার মতামত দিন