ফেইবুকে ছবি দেখে মৈনটে ঘুরতে আসছিলাম: প্রাণে বেঁচে যাওয়া তাহমিদ

996
মৈনটে পদ্মায় ডুবে ঢাবি’র দুই ছাত্র নিহত

ফেইবুকে ছবি দেখে মৈনটে ঘুরতে আসছিলাম; বললেন প্রানে বেঁচে যাওয়া তাহমিদ । মঙ্গলবার ঘটে যাওয়া মৈনট ট্র্যাজেডির বর্ণনা এভাবেই দিচ্ছিলেন অল্পের জন্য প্রানে বেঁচে যাওয়া নির্ঝর ও আহমেদ হাসানের বন্ধু তাহমিদ। নিউজ৩৯-কে দেওয়া একান্ত সাক্ষাতকারে তাহমিদ জানান, ”আমরা ১৩ জন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের প্রথম বর্ষের এবং বাকী ১ জন মোশাররফ সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র। পরীক্ষা শেষে আমাদের এক বন্ধু ফেইসবুকে মৈনট ঘাটের ছবি দেখালে সবাই মিলে সিন্ধান্ত নেই মৈনটে ঘুরতে আসার।

আমরা ঢাকা থেকে রওনা দিয়ে দুপুর ১ টায় মৈনট ঘাটে এসে পৌঁছাই। প্রথমেই নির্ঝর আর আহমেদ পদ্মায় নেমে পড়ে। সাঁতার না জানায় ওরা আর উঠে আসতে পারে নি।

ঘুরতে আসা অন্যরা হলেন- আনিকা, দিনা, পলি, শাহারিয়ার, ঝিলিক, প্রিয়ন্তি, মাহাবুব, সাজিদ, তাহমিদ, মাহমুদ, আনাফ, মোশাররফ (সমাজ বিজ্ঞান)।

নিহত আহামেদ হাসান (২০) ঢাকার ৩৬ মিরপুর রোড ধানমন্ডির আবুল হাসানের ছেলে এবং নিহত আরেক জন আবরার আজওয়ার নির্ঝর (২১) ঢাকার দক্ষিণখানের ৪নং  ওয়ার্ডের ৩৯নং বাড়ির রিয়াজুল হোসেন জয়রে ছেলে।

Comments

comments