নবাবগঞ্জে চলছে সালমা ইসলাম ও নুরুল ইসলাম বাবুলের প্রচারণা

667

নবাবগঞ্জের বর্ধনপাড়ায় বৃহস্পতিবার প্রচার চালিয়েছেন ঢাকা-১ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী (মটরগাড়ি) সাবেক মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম এমপি। এ সময় তার সাথে ছিলেন তার স্বামী  বিশিষ্ট শিল্পপতি যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলামসহ নেতাকর্মীরা।

নবাবগঞ্জের বর্ধনপাড়া এলাকায় বৃহস্পতিবার মহিলা সমাবেশে ঢাকা-১ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী, সাবেক মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম এমপির পক্ষে মটরগাড়ি মার্কায় গণসংযোগে অংশ নিয়ে শিল্পপতি নুরুল ইসলাম এসব কথা বলেন। দীর্ঘদিনের অবহেলিত নবাবগঞ্জ ও দোহার উপজেলার সার্বিক চিত্র পাল্টে গেছে গত পাঁচ বছরে। এ অঞ্চলের উন্নয়ন ও অগ্রগতির এ ধারা অব্যাহত রাখতে আগামী সংসদ নির্বাচনে দল-মত নির্বিশেষে সবাইকে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে হবে। এজন্য ভোটারদের এ আসনের (ঢাকা-১) বর্তমান সংসদ সদস্য ও স্বতন্ত্র প্রার্থী অ্যাডভোকেট সালমা ইসলামকে মটরগাড়ি মার্কায় ভোট দিয়ে জয়ী করার আহ্বান জানিয়েছেন যমুনা গ্র“পের চেয়ারম্যান দেশবরেণ্য শিল্পপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম।

তিনি বলেন, আমার জীবনে চাওয়া-পাওয়ার কিছু নেই। আল্লাহ আমাকে অনেক দিয়েছেন। আমি শুধু অবহেলিত এ এলাকার উন্নয়নে কাজ করতে চাই। মটরগাড়ি মার্কায় আপনাদের একটি ভোট আগামী দিনে দোহার ও নবাবগঞ্জ উপজেলাকে এগিয়ে নিতে সহায়তা করবে। ভালো মানুষকে নির্বাচিত করলে এলাকার উন্নয়ন হবে। তাই আসুন চলমান উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে দল-মতের ঊর্ধ্বে থেকে সবাই মিলে এ এলাকার উন্নয়নে কাজ করি- এ হোক আমাদের অঙ্গীকার।

অন্য খবর  বিশ বছর ঝুলে আছে দোহার পৌর নির্বাচন

সমাবেশে অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম বলেন, আপনারা জানেন, আমি আপনাদের এ এলাকার উন্নয়নে গত ৫ বছর কত কঠোর পরিশ্রম করেছি। এর ফলে দীর্ঘদিনের অবহেলিত নবাবগঞ্জ ও দোহার উপজেলায় এখন শান্তির সুবাতাস। এ অঞ্চলের উন্নয়ন, অগ্রগতি, সমৃদ্ধি ধরে রাখতে আগামী ৩০ ডিসেম্বর মটরগাড়ি মার্কায় ভোট দিয়ে আমাকে বিজয়ী করুন।

সাবেক এ প্রতিমন্ত্রী বলেন, গত ৫ বছরে দোহার ও নবাবগঞ্জের সার্বিক চিত্র পাল্টে গেছে। প্রায় ৭২টি রাস্তার কার্পেটিং হয়েছে। নদীর ভাঙন রোধে বাঁধ নির্মাণসহ কোমরগঞ্জ থেকে বান্দুরা পর্যন্ত ইছামতি নদী খনন করা হয়েছে। গ্রামপর্যায়ে প্রায় ৫১টি কাঁচা সড়ক নির্মাণ করা হয়েছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান জাতীয়করণসহ ১২টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কম্পিউটার ল্যাবের ব্যবস্থা করেছি। জিনজিরা ও কেরানীগঞ্জ-নবাবগঞ্জ-শ্রীনগর আঞ্চলিক মহাসড়ক প্রশস্তকরণের জন্য ৪৬৯ কোটি টাকার কাজ চলমান রয়েছে।

অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম বলেন, এসব চলমান উন্নয়ন কাজ শেষ করাসহ এলাকার উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে আপনাদের সহযোগিতা প্রয়োজন। ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে মটরগাড়ি মার্কায় ভোট দিয়ে আমাকে বিজয়ী করুন। আমি আপনাদের পাশে ছিলাম, সব সময় আপনাদের পাশে থাকব, ইনশাআল্লাহ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জুয়েল আহমেদ, খলিলুর রহমান, একেএম আবদুল হালিম, মুরাদ মিয়া, নারী নেত্রী রেশমী আজাদ, শিল্পী ইসলাম, আসমা আক্তার রুমি প্রমুখ।

আপনার মতামত দিন