দোহার থানা পুলিশের বিরুদ্ধে টাকার বিনিময়ে জুয়াড়িদের ছেড়ে দেয়ার অভিযোগ!

1981

দোহার উপজেলায় পুলিশ ৫ জুয়াড়িকে আটক করে অর্থের বিনিময়ে ছেড়ে দিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। জানা যায়, গত ২৩ মার্চ বৃহস্পতিবার দুপুরে দোহার থানার এসআই তানভির মোর্শেদ ও এসআই সুরুজজামান এর নেতৃত্বে একদল পুলিশ লটাখোলা এলাকায় অভিযান চালিয়ে কাশি, আনু, কালা, হোসেন পাল ও মোস্তাককে লটাখোলা গ্রামের আমির উদ্দিন মেম্বারের বাড়ি থেকে জুয়া খেলার সময় তাদেরকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। পরে তাদেরকে ৩০ হাজার টাকার বিনিমিয় ছেড়ে দিয়েছে বলে জানা যায়। হুমকি দিয়ে টাকা নিয়ে ছেড়ে দেয়ার এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। পুলিশের সঙ্গে জুয়াড়িদের বিশেষ সখ্য ও সহযোগিতা থাকায় বিভিন্ন স্থানে গড়ে উঠেছে জুয়ার স্পট ও মাদক ব্যবসা। এর ফলে এলাকায় চুরি-ছিনতাইসহ বিভিন্ন অপকর্মে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছেন সাধারণ মানুষ। অপর দিকে,  উপজেলার নারিশা বাজার  ইব্রাহিম মৃধার মার্কেটের পিছনে একটি বাড়িতে দীর্ঘদিন থেকে প্রকাশ্যে জুয়া ও মাদক ব্যবসা চলে আসছে বলে এলাকাবাসি জানান। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আটক ব্যক্তিদের কয়েকজন বলেছেন, কাজের ফাঁকে সময় পেলে তারা তাঁস খেলেন। স্থানীয় ব্যক্তিরা জানলেও তাঁদের বাধা দিত না। কিন্তু গত বৃহস্পতিবার এসআই  তানভির  এবং সুরুজ্জামান তাঁদেরকে আটক করে থানায় নিয়ে আসেন। এরপর বিভিন্ন মামলায় আসামি করার হুমকি দিয়ে তাঁদের কাছে মোটা অঙ্কের টাকা দাবি করেন। পরে ৩০ হাজার টাকা দিয়ে তারা ছাড়া পান।

অন্য খবর  নুরুল্লাপুর মেলায় অশ্লীল যাত্রাপালা প্রদর্শনের অভিযোগ

এ বিষয়ে দোহার থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) তানভির মোর্শেদ এবং এসআই সুরুজ্জামান  ৫ জন জুয়াড়িকে আটকের পর ছেড়ে দেওয়ার কথা স্বীকার করলেও টাকা নেওয়ার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ওসি (তদন্ত) সোহেল রানা স্যার তাদেরকে ছেড়ে দিয়েছে। দোহার থানার ওসি (তদন্ত) সোহেল রানা বলেন, এ বিষয়ে আমি কিছু জানি না।

আপনার মতামত দিন