দোহারে সংঘবদ্ধ ডাকাত দলের ৮ ডাকাত গ্রেপ্তার

229
দোহারে সংঘবদ্ধ ডাকাত দলের ৮ ডাকাত গ্রেপ্তার

দোহার (ঢাকা) প্রতিনিধি: ঢাকার দোহার উপজেলায় সংঘবদ্ধ ডাকাত দলের সক্রিয় ৮ ডাকাতকে গ্রেপ্তার করেছে দোহার থানা পুলিশ। মঙ্গলবার (১৯ ডিসেম্বর) উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। বুধবার (২০ ডিসেম্বর) বিকেলে এক প্রেস রিলিজের মাধ্যমে দোহার সার্কেল এর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আশরাফুল আলম এ তথ্য জানান।

গ্রেপ্তারকৃত আসামীরা হলেন, দোহার উপজেলার দক্ষিণ দেবীনগর এলাকার হানিফ চোকদারের ছেলে সুজন চোকদার (২০), একই এলাকার মোঃ জাহান আলী বেপারীর ছেলে পরশ ওরফে জাহিদ বেপারী (২৮), উত্তর দেবীনগর এলাকার মধু বেপারীর ছেলে সুরুজ মিয় ওরফে সরু (৩৪), কুলছুড়ি এলাকার দাদন চোকদারের ছেলে রাকিব চোকদার (২০), দক্ষিণ রাধানগর এলাকার শেখ লিটন এর ছেলে ইমন শেখ (২০), একই এলাকার শেখ লাল মিয়ার ছেলে বাচ্চু মিয়া (৩২), একই এলাকার বজলু বেপারীর ছেলে শাকিল বেপারী (২০), চরকুশাই এলাকার ছামছু চোকদারের ছেলে নাজমুল চোকদার (২৫)।

প্রেস রিলিজ সূত্রে জানা যায়, সোমবার (১৮ ডিসেম্বর) উপজেলার দক্ষিণ রাধানগর এলাকার মোঃ ছন্দু মোল্লার বাড়িতে প্রতিদিনের ন্যায় রাতের খাবার খেয়ে বাড়ির সকল সদস্য ঘুমিয়ে পড়েন। পরে ওই দিন দিবাগত রাত ২টা ৪৫ মিনিটের দিকে ঘরের কাঠের দরজা ভেঙ্গে সংঘবদ্ধ দুর্ধর্ষ ডাকাত দলের ৭/৮ সদস্য দেশীয় অস্ত্র নিয়ে প্রবেশ করে। পরে মোঃ ছন্দু মোল্লার ছেলে রেজাউল করিম রমজানের বাম হাতে ধারালো চাপাতি দিয়ে কোপিয় জখম করে সবাইকে অস্ত্রের মুখে খুন করার ভয়-ভীতি দেখিয়ে জিম্মি করে। এ সময় ঘরের আলমিরার তালা ভেঙ্গে ৫ আনা ওজনের ১টি স্বর্ণের চেন, সাড়ে ৫ আনা ওজনের স্বর্ণের ১ জোড়া কানের দুল, সাড়ে ৩ আনা ওজনের ১ জোড়া কানের দুল, ২টি সামস্যাং ও ১টি অপ্পো মোবাইল সেট এবং ২টি টর্চ লাইট লুট করে নিয়ে পালিয়ে যায় ডাতাক দল। যার আনুমানিক বাজার মূল্য রয়েছে ১ লক্ষ ৪৪ হাজার টাকা। পরে এই ঘটনায় মঙ্গলবার (১৯ ডিসেম্বর) মোঃ ছন্দু মোল্লার ছেলে রেজাউল করিম রমজান বাদী হয়ে দোহার থানায় অজ্ঞাতনামা ৭/৮ জনের বিরুদ্ধে একটি ডাকাতি মামলা দায়ের করেন।

অন্য খবর  কেরানীগঞ্জবাসীর নেই নিজস্ব বাস সার্ভিস, চলছে বাদুর ঝুলে যাতায়াত

প্রেস রিলিজ সূত্রে আরও জানা যায়, উক্ত মামলার আলোকে ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার মোঃ আসাদুজ্জামন এর নির্দেশনায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ আমিনুল ইসলামের দিক নির্দেশনায় দোহার সার্কেল এর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ আশরাফল আলম এর তত্বাবধানে ও অপারেশন পরিকল্পনায় দোহার থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ হারুন-অর রশিদ এর নের্তৃত্বে দোহার থানা পুলিশের একটি চৌকস দল তথ্য প্রযুক্তির সহযোগিতায় ডাকাতি ঘটনার সাথে জড়িত ৮ জন ডাকাতকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়।

দোহার সার্কেল এর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ আশরাফুল আলম বলেন, গ্রেপ্তারকৃত আসামীরা সংঘবদ্ধ ডাকাত দলের সক্রিয় সদস্য। এ ডাকাতির ঘটনার সাথে জড়িত থাকার কথা তারা স্বীকার করে। আসামীরা উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় বিভিন্ন সময় রেকিং করে ডাকাতি করে আসছিল। এরা মূলত মাদকের টাকা জোগার করতে ডাকাতি করে। আসামীদের বিরুদ্ধে এর আগেও একাধিক ডাকাতি মামলা রয়েছে। আসামীদের সাথে আরও কারা কারা জড়িত রয়েছে সে বিষয়ে তদন্ত অব্যহত রয়েছে বলেও জানান এ পুলিশ কর্মকর্তা।

আপনার মতামত দিন