দোহারে পূজার বাজার জমজমাট

102
দোহারে পূজার বাজার জমজমাট

আর মাত্র কিছু দিন পর থেকেই শুরু হচ্ছে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসব দুর্গাপূজা। দোহার উপজেলার জয়পাড়া বাজারে শেষ সময়ে জমে উঠেছে পূজার শপিং। কেনাকাটার জন্য পোশাক ও প্রসাধনীর দোকানে ভিড় করছেন ক্রেতারা। পূজাকে কেন্দ্র করে সকালে ও বিকেল থেকে সন্ধ্যায় মার্কেটে ভিড় জমে, কিন্তু ছুটির দিন গুলোতে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত ক্রেতা সমাগম থাকে চোখে পরার মত। আবার বিক্রি বেশি করার জন্য বেবি শোপ,mbrella shopping, volantes shopping,Yodu গুলোতে ৫০-৭০% পর্যন্ত ছাড় দিচ্ছে।

দুর্গাপূজার নতুন কাপড়, জুতা, প্রসাধনী কিনতে ফুটপাতসহ দোহার উপজেলায় বিভিন্ন শপিং সেন্টারে দেখা গেছে ভিড়। পূজার দিন যতই ঘনিয়ে আসছে, ততই ব্যস্ত সময় পার করছেন দোকানিরা। ষষ্ঠী পর্যন্ত ক্রেতাসমাগম থাকবে বলে মনে করছেন বিক্রেতারা। দোহার উপজেলার জয়পাড়া কাজী সুপার মার্কেট, আহাম্মেদ শপিং মল,বেগম আয়শা শপিং সেন্টার, পাপেল শপিং মল সেন্টার, পালকি শপিং মল,আয়োজন শপিং মল, সুমন বস্র বিতান,লন্ডন প্লাজা, নীল আঁচল,বেবি শোপ,তাজমহল গার্মেন্টস ইত্যাদিসহ অন্যান্য শপিং সেন্টারে ক্রেতাদের উপচে পড়া ভিড় লক্ষ্য করা গেছে।

বিক্রেতারা জানান, এবারের পূজার বাজারে মেয়েদের থ্রি-পিস, সালোয়ার-কামিজ, স্কার্ট-টপস, লেহেঙ্গা, বারবিকিউ শাড়ি, কাতান শাড়ি, সিল্ক্ক শাড়ির চাহিদা বেশি। ছেলেদের ফতুয়া, পাঞ্জাবি-পায়জামা, শার্ট, ফুলপ্যান্ট, টি-শার্ট ও জিন্স এবং বাচ্চাদের নানা রঙের পোশাকের সমাহার রয়েছে বিভিন্ন শপিংমলে। তবে গতবারের থেকে এবার বেচা কেনা একটু কম,তাছাড়া জামা কাপড় এর দামও বেশি।

জয়পাড়া বাজারে তাজমহল গার্মেন্টস মালিক সোহেল বলেন, আমরা ঈদের সময় সবচেয়ে বেশি জামা কাপড় বিক্রি করি। পূজায় তেমন বেশী জামা কাপড় বিক্রি হয় না। গতবারের থেকে এবার বেচা কেনা কম কারণ এবার জামা কাপড় এর দামও বেশি। জামা কাপড় এর দাম বেশী কেনো জানতে চাইলে তিনি বলেন, বর্তমানে ডলারের দাম বেশী সে জন্য জামা কাপড়ের দামও বেশি। যে গুলো ভারত থেকে আসে সে গুলো দাম বেশী পরে।

অন্য খবর  স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নির্বাচিত হলেন দোহার নবাবগঞ্জের কৃতি সন্তান নির্মল রঞ্জন গুহ

তিনি আরো বলেন, এবার পূজার জন্য আমরা সারারা,গারারা, ঝককান,ল্যান্সি স্কাট, লেহেঙ্গা ইত্যাদি উঠিয়েছি।

মেঘুলা বাজারের মৌ ফ্যাসনের পরিচালক আব্দুল হালিম বলেন, আমরা এবার নারীদের ফেন্সী কাতান, ডিজিটাল প্রিন্ট, বাচ্চাদের টপ, রাউন্ড ড্রেস, সামু সিল্ক্ক থ্রি-পিস বেশি বিক্রি করছি। দেড় বছর খারাপ গেছে, কয়েকদিন হয় বেচাকেনা শুরু হয়েছে।

জয়পাড়া বাজারের ভূতের গলির Export Fashion এর মালিক রাজীব আহমদ বলেন, এবারের পূজায় ছেলেদের জন্য নতুন ডিজাইনের ফুলহাতা ও হাফহাতা শার্ট এসেছে। তাছাড়া টি-শার্ট, শার্ট, পাঞ্জাবি-পায়জামা ইত্যাদি বিক্রি হচ্ছে।

জয়পাড়া বাজারে শপিং করতে আসা সুমি পাল বলেন, গত বছর দুর্গাপূজায় আনন্দ কম ছিল কিছুটা করোনাভাইরাসের জন্য। এ বছর উৎসবমুখর পরিবেশে উৎসব উদযাপন করব।’ ক্রেতা হৃদয় শর্মা বলেন, ‘আমাদের সব চেয়ে বড় উৎসব হল দূর্গা পূজা। তাই এই পূজাকে কেন্দ্র করে এবার আমার পরিবারের জন্য কেনাকাটায় কোনো কিছু বাদ দেব না। পরিবারের জন্য প্রয়োজনীয় সব কিছুই কিনবো।

তিনি আরো বলেন, আমার জন্য বাকি রয়েছে প্যান্ট কেনা। মার্কেটে ঘুরছি, নতুন ডিজাইনের ভালো মানের প্যান্ট কিনতে চাচ্ছি পেলেই তা কিনবো।

অন্য খবর  নবীন চেতনা ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে শিক্ষা উপকরন বিতরণ

মোল্লা সু স্টোরের মালিক সজীব মোল্লা জানান, গত বছর পূজার বাজারের চেয়ে এ বছর মোটামুটি ভালোই বেচাকেনা হচ্ছে। জুতার দাম মানের দিক থেকে কিছুটা কমবেশী।

পূজাকে কেন্দ্র করে স্বর্ন বিক্রি কেমন হচ্ছে জানতে চাইলে জয়পাড়া বাজারের স্বর্ন পট্টির মিশু,শ্যামল পাল বলেন, পূজায় তেমন ভাবে স্বর্ন বিক্রি হয় না বা গহনার জন্য আসে না। আমরা সারা বছর যে ভাবে বিক্রি করি পূজার সময়ও তেমনি বিক্রি করি। ঠাকুরের গহনা আপনারা বানান কি না এমন প্রশ্ন করলে তারা বলেন, আমরা ঠাকুরের গহনা বানায়ই না এগুলো ঢাকা থেকে রেডি মেট কিনে আনা হয়।

দোহার থানার পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি অমিতাভ পাল অপু জানান, এবার দোহার থানায় ৪০টি পূজা মন্ডবে পূজা উদযাপন হবে। জেলা প্রসাশক ও স্থানীও প্রসাশন আমাদের সার্বিক খোঁজ খবর রাখছেন। এবারি প্রথম সব মন্দিরে সিসি ক্যামেরা থাকছে।

পূজায় আইনশৃঙ্খলার বিষয় দোহার থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তফা কামাল জানান, সকল পূজা মন্ডবে সিসি ক্যামেরা থাকবে। পুলিশ সদস্য,র‍্যাব, আনসার ও গ্রাম পুলিশ পূজা মন্ডবে ২৪ ঘন্টা পাহাড়য় থাকবে। ধর্মীয় রক্ষার্থে আজানের সময় গান,ঢোল,তবলা ইত্যাদি বন্ধ রাখতে হবে। দোহার থানা পুলিশ সকলের পাশে আছে এবং থাকবে।

মন্তব্য