দোহারের মৌড়ায় ফুটবলারদের জন্য ক্রীড়া সামগ্রী ও জার্সি বিতরণ

99

তাহসান একজন তরুণ সমাজকর্মী। মৌড়া গ্রামের সুবিধাবঞ্চিত পরিবারের প্রাথমিক চাহিদা পূরণে সহযোগিতার জন্য ২০১৭ সালে প্রতিষ্ঠা করেন একটি সামাজিক সংগঠন, সংগঠনটির নাম মৌড়া একতা যুব সংঘ।

বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া ছড়িয়ে পরেছে ঢাকা দোহার উপজেলায় একটি অন্যতম সংগঠন সবাই মিলে করব কাজ,”গড়বো মোরা মাদক মুক্ত সমাজ” স্লোগান টি সামনে রেখে এগিয়ে যাচ্ছে মৌড়া একতা যুব সংঘ।

ঢাকা দোহার উপজেলায় মুকসুদপুর ইউনিয়নে যেকোন সংকটে অসহায় ও দুস্থ্যদের পাশে দাঁড়িয়ে প্রশংসা কুড়াচ্ছে তাহসান হৃদয়ের হাতে গড়ে তোলা মৌড়া একতা যুব সংঘ সংগঠনটি। বিশেষ করে মহামারি করোনা ভাইরাসের শুরু থেকে সংগঠনটি মৌড়ায় ব্যাপক কাজ করেছে।

এ ছাড়া গ্রুপের সদস্যদের নিজ উদ্যোগে ৪ বছর ধরে গ্রুপটি স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচি, বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি, বিভিন্ন সামাজিক কার্যক্রম পরিচালনা, অসহায় ছিন্নমূল মানুষের মাঝে ঈদ পোশাক বিতরণ এবং মৌড়া ফুটবল দলের উন্নয়নের লক্ষ্য কাজ করে যাচ্ছে সংগঠনটির সদস্যরা।

এসময় মৌড়া ফুটবল দলের অধিনায়ক ১০ নাম্বার জার্সি পরিহিত খেলোয়াড় ইকরাম হোসেন রাজ বলেন, তাহসান হ্নদয় সব সময় মৌড়া গ্রামের সকল ভালো কাছে অংশ গ্রহণ করেন। আর অনেক দিন যাবত সে মৌড়া ফুটবল দলের পাশে আছে। এইবার সে আমাদের দলের স্পনসর হয়েছে তাই আমি মৌড়া ফুটবল দলের হয়ে তাকে ধন্যবাদ জানাই।

অন্য খবর  পরীক্ষা যখন ভোগান্তি

সংগঠনের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা তাহসান হৃদয় বলেন, মানুষ মানুষের জন্য। স্বেচ্ছাসেবী ও সামাজিক সংগঠন রূপে আমরা মানবতার সেবায় কাজ করে যাচ্ছি। এই পরিস্থিতিতে আমাদের সঙ্গে যদি আরও বেশি পরিমাণ বিত্তবানরা এগিয়ে আসতেন তাহলে হয়তো আরও সহজে সব অসহায়ের পাশে পৌঁছে যেতাম। একটু ইচ্ছাশক্তি থাকলে সব বিজয় অর্জন করা সম্ভব। আমরা আমাদের গ্রামের সুবিধাবঞ্চিত মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছি এবং আমাদের সংগঠনটি বিভিন্ন সামাজিক কাজে অবদান রাখার জন্য প্রশংসা কুড়িয়েছে। জার্সি উপহার দেওয়ার মূল কারণ হচ্ছে বর্তমান তরুণ সমাজ যেনো মাদকের সাথে জরিয়ে না পরে, তারা যেনো খেলায় আরো মনোযোগী হয় এজন্য আমি ব্যক্তিগত ভাবে মৌড়া দলের পাশে থাকবো সবসময়। আমরা ধীরে ধীরে এগিয়ে যাচ্ছি। ইনশাআল্লাহ আমাদের সংগঠন মৌড়া থেকে মুকসুদপুর, মুকসুদপুর থেকে দোহার পর্যন্ত কার্যক্রম পরিচালনা করবে সেদিন আর বেশি দূরে নয়।

মন্তব্য