দারিদ্র্য বিমোচন ও আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে কাজ করতে চাই: সালমা ইসলাম

21
দারিদ্র্য বিমোচন ও আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে কাজ করতে চাই: সালমা ইসলাম

দোহার ও নবাবগঞ্জের মানুষের ভাগ্য উন্নয়নে দারিদ্র্য বিমোচন ও আর্থ-সামাজিক অগ্রগতিতে আমি কাজ করতে চাই। সেজন্য আপনারা আমাকে আগামী ৭ জানুয়ারি লাঙ্গল প্রতীকে ভোট দিয়ে বিজয়ী করবেন।

মঙ্গলবার জাতীয় পার্টির আয়োজনে নির্বাচনি সভায় ও উঠান বৈঠকে পার্টি মনোনীত ঢাকা-১ আসনে লাঙ্গল প্রতীকের প্রার্থী জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম ভোটারদের উদ্দেশে এসব কথা বলেন।

শীতের পড়ন্ত বিকালে পদ্মা নদীর তীরবর্তী দোহার উপজেলার নারিশা ঝনকি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে এ বৈঠকের আয়োজন করা হয়।

সাবেক প্রতিমন্ত্রী সালমা ইসলাম বলেন, যেকোনো অন্যায় অবিচারের বিরুদ্ধে আমি আপনাদের পাশে ছিলাম আগামীতেও থাকব ইনশাআল্লাহ। এ সময় ‘সালমা ইসলাম এগিয়ে চলো, আমরা আছি তোমার সাথে’ ও ‘লাঙ্গল লাঙ্গল’ স্লোগানে কম্পন উঠে উঠান বৈঠকে।

সেখানে তিনি আরও বলেন, পদ্মার ভাঙনে বিপুল পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে দোহারবাসীর। আমি নির্বাচিত হলে সরকারিভাবে তালিকা করে অতি-হতদরিদ্র ভাঙন কবলিত পরিবারগুলোকে আর্থিক সহায়তার ব্যবস্থা করব। এছাড়া ভাঙনরোধে চলমান কার্যক্রমকে গতিশীল করতে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

সালমা ইসলাম বলেন, পদ্মাপাড়ের পিছিয়ে পড়া অসংখ্য মানুষ যারা গৃহহীন, ভূমিহীন তাদের জন্য আমার প্রাণ কাঁদে, আমি আপনাদের কল্যাণ কাজ করতে চাই। আপনাদের পাশে থেকে আপনার ছেলেমেয়ের চাকরি, শিক্ষার পাশাপাশি স্বাস্থ্যসেবায় নিজেকে নিয়োজিত করতে চাই। আগামীতে নতুন প্রজন্মের জন্য কাজ করে যেতে চাই। যাতে ওরা আগামী দিনে দেশ-বিদেশে দোহার-নবাবগঞ্জকে নিয়ে গর্ব করতে পারে।

অন্য খবর  খানেপুর স্কুলের সভাপতি নির্বাচিত হলেন সম্পাদক আসাদুজ্জামান

এ সময় নির্বাচনি উঠান বৈঠক জনসভায় রূপান্তর হয়। উঠান বৈঠকে অংশ নেওয়া বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ সালমা ইসলামকে ভোটের পরিবেশ তৈরি করার আহবান জানান। তিনি বলেন, কোনো ভয় নেই আপনাদের। আপনিই আপনার ভোটের মালিক, তাই সিদ্ধান্ত আপনার। আমি আশা করি সত্য সুন্দর এক মানবিক দোহার ও নবাবগঞ্জ উপহার দিব আপনাদের। শুধু একটিবার সুযোগ দিন লাঙ্গল প্রতীকে ভোট দিন।

বাজার সম্প্রসারণের মাধ্যমে দোহার-নবাবগঞ্জের প্রতিটি গ্রামের জনসাধারণকে শহরের বিভিন্ন ধরনের সুবিধা দেওয়ার ব্যবস্থা করব ইনশাআল্লাহ। এ সময় দলীয় নেতাকর্মীরা ‘লাঙ্গল লাঙ্গল’ স্লোগানে সভাস্থলকে মুখরিত করে তোলেন।

সালমা ইসলাম বলেন, মানুষ জিম্মিদশা থেকে মুক্তি চায়। প্রতিটি মানুষের নাগরিক অধিকার বাস্তবায়নের ও প্রয়োগের অধিকার আমাদের রাষ্ট্রীয় সংবিধানে রয়েছে। আমরা অবশ্যই আমাদের অধিকার আদায় করতে সচেষ্ট থাকব।

এ সময় তিনি দোহার-নবাবগঞ্জের প্রতিটি মানুষের কাছে লাঙ্গল প্রতীকে ভোট চেয়ে বলেন, আমি আপনাদের কাছে এসেছি এই এলাকার উন্নয়নে কাজ করতে। আমার পরিবারের উন্নয়নের জন্য নয়। আমার পরিবারের সদস্যরা আপনাদের স্বজন ও আপনজন। কারণ আমার স্বামী প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম আপনাদের প্রিয় মানুষ ছিলেন। তিনি আপনাদের ব্যথায় ব্যথিত হতেন। দোহার-নবাবগঞ্জ নিয়ে তার স্বপ্ন ছিল অনেক বড়। সেটি বাস্তবায়নে আপনাদের কাছে ছুটে আসছি। আপনারা নিশ্চয়ই আমাকে ফিরিয়ে দেবেন না।

অন্য খবর  দোহারে অসহায়দের মাঝে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর ঈদ বস্ত্র বিতরণ

এ সময় নবাবগঞ্জ উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি জুয়েল আহমেদ, জাতীয় পার্টির নেতা মশিউর রহমান, নবাবগঞ্জ উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক খলিলুর রহমান, বোরহান হোসেন, দোহার উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি হায়দার ব্যাপারী, সাধারণ সম্পাদক জানে আলম, ডা. আলাউদ্দিন আল আজাদ, আব্দুল আলীম, মাসুদ মাঝি, মো. মানিক, মিল্লাত হোসেন, বাবুল হোসেন, আইরিন গমেজ, নজরুল ইসলাম, মনির হোসেনসহ দোহার উপজেলা জাতীয় পার্টি, মহিলা পার্টি ও ছাত্র সমাজের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মতামত দিন