জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারঃ ৬টি বিভাগে শ্রেষ্ঠ দোহারের গাজী রাকায়েত

1133

দোহারে সন্তান গাজী রাকায়েত। দোহারের মুকসুদপুরে সন্তান। পদ্মা সরকারি কলেজের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা। তার নামটি ২ শব্দের। কিন্তু কর্মের বিশালতা ও সীমানা বিশ্বজুড়ে। বাংলাদেশের নির্মিত একমাত্র ইংরেজি The Grave বা গোরের পরিচালক ও কেন্দ্রীয় চরিত্র। সিনেমাটি এবার অস্কারে যাচ্ছে। একাধারে তিনি দেশের একমাত্র সৃজনশীল নাট্য গোষ্ঠী চাড়ুনীরমের প্রতিষ্ঠাতা।

সেই গাজী রাকায়েত ধারাবাহিকভাবে পেয়ে আসছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। বরাবরের মতো এবছরও তিনি প্রধানমন্ত্রীর হাত থেকে ৬ টি পুরস্কার গ্রহণ করেছেন শ্রেষ্ঠত্বের জন্য।

এই ব্যাপারে গাজী রাকায়েত নিউজ৩৯ কে বলেন, শ্রেষ্ঠ কাহিনী, শ্রেষ্ঠ সংলাপ, শ্রেষ্ঠ চিত্রনাট্য,শ্রেষ্ঠ পূর্ণ দৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র , শ্রেষ্ঠ পরিচালনা ও শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেতা এই ৬টি বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরুষ্কার পেয়েছি। আমার পরিচালনায় সল্প দৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র “নারী জীবন” এবার শ্রেষ্ঠ সল্প দৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র হিসেবে জাতীয় পুরুষ্কার পেল। আমার ঝুরিতে আরো একটি পুরুস্কার যুক্ত হল আর বাংলাদেশ সিনেমা ও টেলিভিশন ইনিস্টিটিউটের ঝুরিতে জমা হলো দুটো পুরুস্কার। আমি ভীষণ খুশী হয়েছি পুরুস্কারটি গ্রহণ করেছেন বাংলাদেশ সিনেমা ও টেলিভিশন ইনিস্টিটিউটের প্রধান নির্বাহী আবুল কালাম আজাদ এবং “নারী জীবন” চলচ্চিত্রে কেন্দ্রীয় চরিত্রে রূপদানকারী নুরন্নাহার বেগমে(নাহার)। বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের জয় হোক।

অন্য খবর  নবাবগঞ্জে ভিক্ষুক পুনর্বাসন প্রক্রিয়া শুরু

উল্লেখ্য গাজী রাকায়েত সব সময় দেশীয় সংস্কৃতির বিকাশ ও ধর্মীয় মূল্যবোধ এর সংমিশ্রণে, দেশের ইতিহাস, ঐতিহ্য ও সাংস্কৃতিক আন্দোলনে অগ্রণী ব্যাক্তিদের শীর্ষ স্থানীয় শিল্পী ও পরিচালক এবং নির্মাতা।

Comments

comments