গতিপথ পরিবর্তনে কারণে নকশা পরিবর্তন; সংরক্ষণ ও বাধ নির্মাণে ব্যয় হবে ১৮০০ কোটি টাকা – চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন

1167

আল আমিন, শরিফ হাসান, news39.net: দোহার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন news39.net কে বলেছেন, পদ্মা নদী তার গতিপথ পরিবর্তন করেছে। তাই, এখন সমগ্র দোহারকে নদী শাসনের আওতায় আনা হয়েছে। নদীর গতিপথ পরিবর্তনের কারণে বাধের নকশা পরিবর্তন করা হয়েছে। এতে দোহার উপজেলা সংলগ্ন ৩৪কিমি পদ্মা তীর সংরক্ষণ ও বাধ নির্মাণে ব্যয় হবে ১৮০০ কোটি টাকা।

আলমগীর হোসেন আরও বলেন, বাহ্রাঘাট থেকে মাঝিরচর পর্যন্ত বাধের বা নদীশাসনের আওতায় ছিলো না। এখন কাজ চলছিলো মাঝিরচর থেকে মুকসুদপুর পর্যন্ত ৬.৫ কিমি কাজ চলছিলো। নয়াবাড়ি থেকে বাহ্রাঘাট পর্যন্ত ২১৭ কোটি টাকার কাজ ইতঃমধ্যে কাজ সম্পন্ন হয়েছিলো। আগে ড্রেজিং এর জন্য বরাদ্দ ছিলো ১০০০ কোটি টাকা এখন বরাদ্দ হয়েছে ৬০০ কোটি টাকা। এটা নদীর গতিপথের পরিবর্তনের জন্য কমেছে। কিন্তু নারিশার একটা পয়েন্ট ঝুকিপূর্ণ থাকায় সেই পয়েন্টটি গুরুত্বপূর্ণ বিবেচনা করা হয়েছে। এখন সমগ্র দোহার থানা পদ্মা নদী সংলগ্ন ৩৪ কিমি এলাকা পুরোটি নদী শাসন, ড্রেজিং ও বাধের আওতায় আনা হয়েছে। এবং সামগ্রিকভাবে বাজেট বেড়ে হয়েছে ১৮০০ কোটি টাকা। আর সমগ্র প্রকল্পটি দ্রুততম সময়ে শেষ করতে এমপি মহোদয় নির্দেশনা দিয়েছেন। এছাড়া তিনি ঢাকা থেকে দোহার – নবাবগঞ্জ সড়কের সার্বিক উন্নতি পর্যবেক্ষণ করেন ও প্রয়োজনীয় দিক নির্দেশনা দেন।

উল্লেখ্য ঢাকা -১ সাংসদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার শিল্প ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদ্বেষ্টা সালমান এফ রহমান এমপি শনিবার ঢাকার দোহার এবং নবাবগঞ্জ উপজেলায় বিভিন্ন উন্নয়ন কার্যক্রম পরিদর্শন করেন। দোহারের মুকসুদপুর ইউনিয়নের সরকারি পদ্মা কলেজে, পদ্মা তীর সংরক্ষণ ও বাধ নির্মাণ বিষয়ে এক জরুরি বৈঠক করেন তিনি।

আপনার মতামত দিন