ইসরায়েলি হামলায় পরিবারের ১০ সদস্য হারালেন ইসমাইল হানিয়া

4
ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজা ভূখণ্ডে অবিরাম হামলা চালিয়ে যাচ্ছে ইসরায়েল।

ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজা ভূখণ্ডে অবিরাম হামলা চালিয়ে যাচ্ছে ইসরায়েল। টানা আট মাসেরও বেশি সময় ধরে চালানো এই হামলায় এখন পর্যন্ত নিহত হয়েছেন ৩৭ হাজারেরও বেশি ফিলিস্তিনি।

এর মধ্যেই ইসরায়েলি হামলায় পরিবারের ১০ সদস্য হারিয়েছেন ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সশস্ত্র গোষ্ঠী হামাসের রাজনৈতিক ব্যুরো প্রধান ইসমাইল হানিয়া। গাজায় তার পরিবারের বাড়িতে ইসরায়েলি সামরিক বাহিনী বোমা হামলা চালালে প্রাণহানির এই ঘটনা ঘটে।

নিহতদের মধ্যে ইসমাইল হানিয়ার বোনও রয়েছেন। মঙ্গলবার (২৫ জুন) এই তথ্য জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা।

সংবাদমাধ্যমটি বলছে, ইসরায়েলি সামরিক বাহিনী উত্তর গাজায় হামাসের রাজনৈতিক নেতা ইসমাইল হানিয়ার পরিবারের বাড়িতে বোমা হামলা চালিয়েছে এবং এতে তার বোনসহ অন্তত ১০ জন নিহত হয়েছেন বলে আল জাজিরা আরবি জানিয়েছে।

এর আগে ইসরায়েলি সামরিক বাহিনী গাজা শহরের কাছে শাতি ক্যাম্প এলাকায় হামলা চালিয়েছে বলে জানিয়েছিল সংবাদমাধ্যমটি। স্থানীয় গণমাধ্যম বলছে, হামলায় নিহতরা সবাই হানিয়ার পরিবারের সদস্য।

এর আগে গত এপ্রিলে ইসরায়েলের বিমান হামলায় ইসমাইল হানিয়ার তিন ছেলে ও তিন নাতি-নাতনি নিহত হয়েছিলেন। গত ১০ এপ্রিল ঈদুল ফিতরের দিন গাজার আল শাতি শরণার্থী ক্যাম্পে হানিয়ার ছেলেদের বহনকারী গাড়িতে চালানো হামলায় তারা প্রাণ হারান।

অন্য খবর  ইমরান খান গ্রেফতার; আলোচিত তোষাখানা মামলায় ৩ বছরের কারাদণ্ড

মূলত ঈদ উপলক্ষ্যে হানিয়ার ছেলেরা আল শাতি ক্যাম্পে তাদের আত্মীয়-স্বজনদের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন বলে সেসময় জানিয়েছিল ফিলিস্তিনি সংবাদমাধ্যমগুলো।

এদিকে ছেলে ও নাতি-নাতনিদের মৃত্যুর খবরে (শহীদ হওয়ায়) আল্লাহর কাছে সেসময় সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছিলেন হামাস প্রধান। তিনি বলেছিলেন, ‘তাদের শহীদ হওয়ার মর্যাদা প্রদান করায় আল্লাহকে ধন্যবাদ।’

আপনার মতামত দিন