আশুলিয়ায় বাস পোড়ানোর মামলায় যুবদল-ছাত্রদলের ৬ নেতা গ্রেপ্তার

10
আশুলিয়ায় বাস পোড়ানোর মামলায় যুবদল-ছাত্রদলের ৬ নেতা গ্রেপ্তার

ঢাকার অদূরে আশুলিয়ায় যানবাহন ভাঙচুরসহ বাসে আগুন দেওয়ার ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে যুবদল-ছাত্রদলের ছয় নেতাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গতকাল সোমবার রাজধানী ঢাকা, আশুলিয়া, সাভার, ধামরাই ও মানিকগঞ্জে অভিযান চালিয়ে এই ছয়জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। আজ মঙ্গলবার পুরান ঢাকায় ঢাকা জেলার পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়।

পুলিশের তথ্যমতে, গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা হলেন ঢাকা জেলা যুবদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম (৪০), ঢাকা জেলা যুবদলের সহসাংগঠনিক সম্পাদক মো. সুরুজ্জামান (৪৭), ঢাকা জেলা যুবদলের সদস্য মো. মুমিনুল ইসলাম (৪৫), ধামরাই পৌর ছাত্রদলের সদস্য অপূর্ব চন্দ্র দাস (২২), ধামরাই থানা যুবদলের সদস্য রাজীব হোসেন ও সাভার থানা যুবদলের সদস্য মো. সুজন (৩৪)।

সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা জেলার পুলিশ সুপার মো. আসাদুজ্জামান বলেন, গত ২৯ জুলাই ঢাকার প্রবেশমুখগুলোয় অবস্থান কর্মসূচি দিয়েছিল বিএনপি। এই কর্মসূচি চলাকালে বেলা সোয়া ৩টা থেকে সাড়ে ৩টার মধ্যে বিএনপির কিছু নেতা-কর্মী আশুলিয়ার নিরিবিলি এলাকায় ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে বিভিন্ন গাড়ি ভাঙচুর করেন। তাঁরা ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটান। তাঁরা বাসে আগুন দিয়ে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করেন।

অন্য খবর  মানিকগঞ্জের পাটুরিয়ায় ফেরিডুবি: এ পর্যন্ত জীবিত উদ্ধার ১০, নিখোঁজ ১ জন

পুলিশ সুপার আসাদুজ্জামান বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত বিকাশ পরিবহন নামের বাসের চালক আনোয়ার হোসেন ঘটনার পরদিন বাদী হয়ে আশুলিয়া থানায় একটি মামলা করেন। এই মামলার ভিত্তিতে পুলিশ ঘটনার ফুটেজ পর্যালোচনা করে। ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিদের শনাক্ত করা হয়। পরে রাজধানীর আদাবর থেকে শহিদুল, সুরুজ্জামান ও মুমিনুলকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাঁদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে অন্যত্র অভিযান চালিয়ে অপূর্ব, রাজীব ও সুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাঁরা জিজ্ঞাসাবাদে যানবাহন ভাঙচুর, ককটেল ফাটানো ও বাস পোড়ানোর কথা স্বীকার করেছেন।

ঢাকা জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আবদুল্লাহহিল কাফী আজ প্রথম আলোকে বলেন, বাস পোড়ানো মামলায় ছয়জনকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে প্রত্যেকের সাত দিন করে রিমান্ডের আবেদন জানিয়ে ঢাকার আদালতে পাঠানো হয়েছে।

 

আপনার মতামত দিন