আগাম জামিনের পরও আবু আশফাককে গ্রেফতারের চেষ্টাঃ পুলিশের  নাকচ

254

আছিফুর রহমান সজল,নিউজ৩৯ঃ ঢাকা জেলা বিএনপি’র সাধারন সম্পাদক ও নবাবগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান খন্দকার আবু আশফাকের বাড়ি ও নবাবগঞ্জ উপজেলা পরিষদে তার অফিস ঘিরে রাখার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সম্প্রতি মামলা হওয়ার পর, খন্দকার আবু আসফাক বেশ কিছু দিন ধরেই অপ্রকাশ্য থেকেই দলীয় ও স্থানীয় রাজনীতিতে সক্রিয় ছিলেন। বিভিন্ন সামাজিক ও যোগাযোগ মাধ্যমে তিনি নেতা-কর্মিদের সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন। মামলার কারনে পুলিশের গ্রেফতারের তালিকাতে শীর্ষ চাহিদা সম্পন্ন ছিলেন তিনি।

কিন্তু গতকাল বুধবার হাইকোর্ট থেকে আগাম জামিন নিয়ে তিনি আবার নবাবগঞ্জ আসেন বৃহস্পতিবার।  এরই পরিপ্রেক্ষিতে আজ নবাবগঞ্জ উপজেলা পরিষদের মাসিক সভায় উপস্থিত থাকার কথা ছিল খন্দকার আবু আশফাকের। সেই হিসাবে আজ তিনি নবাবগঞ্জ উপজেলায় এসে উপস্থিত হলে, অনেকটা অবরুদ্ধ হয়ে পড়েন তিনি। তাকে গ্রেফতার করতে তার বাসা ও নবাবগঞ্জ উপজেলা অফিস পুলিশ দিয়ে ঘিরে রাখা হয়েছে।

এই ব্যাপারে নিউজ৩৯ এর সাথে কথা হয় খন্দকার আবু আশফাকের। তিনি নিউজ৩৯কে খন্দকার আবু আসফাক বলেন, ঢাকা থেকে আশা পুলিশ ও ডিবি অফিসাররা তার বাসা ও অফিস ঘিরে রেখেছে। তিনি হাইকোর্ট থেকে জামিন নিয়ে আজ নিজের অফিসে উপস্থিত হয়েছেন। আগাম জামিন থাকা সত্বেও তাকে হয়রানি করতে আজ তার বাসায় ও অফিস পুলিশ দিয়ে ঘিরে রাখা হয়েছে।

অন্য খবর  পুলিশ যদি দোহার নবাবগঞ্জের কাউকে হয়রানি করে, সেক্ষেত্রে আমি জিরো টলারেন্সঃ সালমান এফ রহমান

এই ব্যাপারে নিউজ৩৯ এর সাথে কথা নবাবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোস্তফা কামাল। তিনি মোস্তফা কামাল নিউজ৩৯কে বলেন, পুলিশের কি কোন কাজ নেই যে তারা খন্দকার আবু আশফাকের বাসা ঘিরে রাখবে। নবাবগঞ্জ থানা এই ধরনের কোন কাজ করছে না। ঢাকায় থেকে কেউ আসলে তার ব্যাপারে আমার কিছু জানা নেই।

ঢাকা জেলা বিএনপি সাধারন সম্পাদক খন্দকার আবু আশফাকের গ্রামের বাড়ী ও অফিসে পুলিশী তান্ডবের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে ঢাকা জেলা বিএনপি। এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে ঢাকা জেলা বিএনপির দপ্তর সম্পাদক অ্যাডভোকেট মনির হোসেন রানা ঢাকা জেলা বিএনপির পক্ষে এই প্রতিবাদ ও নিন্দা জানান।

আপনার মতামত দিন