SAMS’92 সদস্য বরগুনার ডিসি হাবিবুর রহমানকে সংবর্ধনা

110

শরিফ হাসান ও তৌহিদ ইসলাম, news39.net: দোহার উপজেলার মালিকান্দা গ্রামের কৃতি সন্তান বরগুনার ডিসি হাবিবুর রহমান। হাবিবুর রহমান ছিলেন মেঘুলা – মালিকান্দা স্কুলের ১৯৯২ সালের এসএসসি পরীক্ষার্থী। এবার সেসব বন্ধুদের নিয়ে সংগঠন SAMS 92 শুক্রবার বিকালে দোহারের এই কৃতি সন্তানকে সংবর্ধনা দিলো। এই সংবর্ধনায় ও নিজ স্কুল এবং এলাকার স্বজনদের সংবর্ধনায় তিনি আবেগে আপ্লুত। বরগুনা জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমান, তিনি নিজেও SAMS 92এর সাবেক সভাপতি।

উদ্বোধনী বক্তবে সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ডাঃ কে এম মাহবুবুর রহমান বলেন, দোহারে আমারা সাধারণ মানুষের মাঝে কাজ করে যাচ্ছি। আমরা আমাদের সংগঠনের মাধ্যমে করোনার সময় দোহারে ত্রান দিয়েছি। শিক্ষা ক্ষেত্রে দোহারে শিক্ষার হার বৃদ্ধির জন্য আমরা অসহায় ছাত্রদের সাহায্য করছি। চিকিৎসা ক্ষেত্রেও ফ্রি ফ্রাইডে মেডিকেল ক্যাম্প চলমান।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত দোহার উপজেলার সহকারী কমিশনার ভূমি জ্যোতি বিকাশ চন্দ্র বলেন, আমি যত দূর জানি এটি ৩০ বছর আগে ১৯৯২ সালের মেঘুলা -মালিকান্দা ব্যাচ নিয়ে সংগঠনটি গঠিত হয়। এই সংগঠনের মাধ্যমে দোহারে অনেক সেবামূলক কাজ হয়েছে। করোনা মহামারী সময় তারা তাদের সংগঠনের মাধ্যমে অসহায়দের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেছে আমিও সেখানে গিয়েছি ত্রাণ বিতরণ অনুষ্ঠানে। বাংলাদেশে ৬৪ টি জেলা আছে তার মধ্যে বরগুনা জেলা একটি আর এই জেলার জেলা প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছে এই SAEM 92 সংগঠনের সাবেক সভাপতি ও দোহারের কৃতি সন্তান হাবিবুর রহমান স্যার। তিনি সাফল্য ও দক্ষতার সাথে তার দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। আমি এই সংগঠনের মত অন্য কোন উপজেলায়ও যদি এমন সংগঠন পাই তাহলে তাদের খোঁজ খবর নিবো। সরকারের পক্ষ থেকে সাহায্য সহযোগিতা করবো সেই সংগঠনকে।

অন্য খবর  সিংগাইরে সন্তানসহ গৃহবধূ উধাওঃ নবাবগঞ্জ থানায় মামলা

নারিশা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি লেবু খান বলেন, SAMS- 92 দোহারে ইতিহাস তৈরি করেছে। তারা নিজেদের গড়ে তুলেছেন তার সাথে সাথে তারা SAMS 92 নামে সংগঠনকেও গড়ে তুলেছেন। সেই ধারাবাহিকতায় আজ হাবিবুর রহমান বরগুনার জেলা প্রশাসক ও অধ্যাপক কবিরুল বাসার জাহাংগীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক। তিনি আন্তর্জাতিকভাবে খ্যাতিমান। তিনি মশা ও মশাবাহিত রোগ এবং প্রতিষেধক নিয়ে গবেষণা করছেন। যা আন্তর্জাতিকভাবে নন্দিত।

প্রধান অতিথির বক্তবে বরগুনা জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমান বলেন, আমরা যখন ১৯৯২ সালে এক সাথে সবাই পড়াশোনা করতাম তখন আমরা সবাই মিলে একটা সংগঠন করি যার নাম দেওয়া হয় SAMS 92। এখন আমরা সরকারি চাকরিজীবি। আমরা সরকারের হয়ে কাজ করি। তাই আমি দোহারের সবাইকে আহ্বান জানাই তারা যাতে শিক্ষিত হয়ে দেশ ও জাতির সেবা করে। আমরা জানি, ঘুমিয়ে থেকে স্বপ্ন দেখার নাম স্বপ্ন নয়; বাস্তবে স্বপ্ন পূরণ করার নামই স্বপ্ন। আজকে যারা এখানে উপস্থিত হয়েছেন আমি সবাইকে আমরা পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানাই।

সে সময় উপস্থিত ছিলেন SAMS 92 বর্তমান সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম, ডাঃ কাজী মাহবুবুর রহমান, ডঃ কবিরুল বাসার, আলমগীর হোসেন, করিম বেপারী, মোশাররফ হোসেন, মোক্তার হোসেন, শওকত হোসেন, ফজলুর রহমান বখতিয়ার উদ্দিন লেবু খানসহ SAMS 92 এর সদস্যবৃন্দ।

অন্য খবর  জাতীয় পুষ্টি সপ্তাহে পুষ্টিকর খাদ্য পেল আড়াই শতাধিক পরিবার

অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন পংকজ কুমার ঘোষ।

মন্তব্য