বন্যার পানিতে ডুবে গেছে দোহারের অধিকাংশ নিম্নাঞ্চল; ঝুঁকিতে রয়েছে শতশত পরিবার

দোহার উপজেলার নারিশা ইউনিয়নের মেঘুলা বাজার, সাতভিটা, চৈতাবাতর, নারিশা বাজার, মুকসুদপুর ইউনিয়নের পূর্বচর, গোড়াবন, সুতারপাড়া ইউনিয়নের কাজীর চর গ্রামসহ বিলাশপুর ও রায়পাড়া ইউনিয়নের প্রায় বিশ হাজার মানুষ বন্যার পানিতে বন্দীদশায় রয়েছে।গত ৪ দিনে পদ্মার পানি অতিমাত্রায় বেড়ে যাওয়ায় নয়াবাড়ি ইউনিয়নের বাহ্রা ও আন্তা বাহ্রার এবং কাজীরচরের রাস্তা ভেঙ্গে তলিয়ে গেছে ফসলিজমিসহ বসতবাড়ি।

315

ঢাকার দোহারে বন্যার পানিতে ডুবে গেছে অধিকাংশ নিম্নাঞ্চল। ঝুঁকিতে রয়েছে শতশত পরিবার। বন্যার পানিতে নিম্নাঞ্চলের কয়েক ইউনিয়নের প্রায় বিশ হাজার মানুষ পানিবন্দী হয়েছে ।

উপজেলার নারিশা ইউনিয়নের মেঘুলা বাজার, সাতভিটা, চৈতাবাতর, নারিশা বাজার, মুকসুদপুর ইউনিয়নের পূর্বচর, গোড়াবন, সুতারপাড়া ইউনিয়নের কাজীর চর গ্রামসহ বিলাশপুর ও রায়পাড়া ইউনিয়নের প্রায় বিশ হাজার মানুষ বন্যার পানিতে বন্দীদশায় রয়েছে।

গত ৪ দিনে পদ্মার পানি অতিমাত্রায় বেড়ে যাওয়ায় নয়াবাড়ি ইউনিয়নের বাহ্রা ও আন্তা বাহ্রার এবং কাজীরচরের রাস্তা ভেঙ্গে তলিয়ে গেছে ফসলিজমিসহ বসতবাড়ি। ইতোমধ্যে কয়েকটি রাস্তাঘাটসহ বন্যায় জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে মসজিদ-মাদ্রাসা ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কে এম আল আমিন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি নিয়ে ইতোমধ্যে কয়েকটি বন্যা কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেন স্থানীয় এবং সেখানকার মানুষদের সাথে কথা বলে ত্রানের আশ্বাস দেন।

Comments

comments