এখন আমি রিটায়ার্ড করতে চাই – নজরুল ইসলাম বাবুল, সভাপতি – দোহার আওয়ামীলীগ

656

মোঃ আল-আমিন, স্টাফ রিপোর্টার, news39.net: নজরুল ইসলাম বাবুল, দীর্ঘদিন ছিলেন দোহার উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি। দীর্ঘ ১৯ বছর পর হতে যাওয়া, আওয়ামীলীগের ৫ম সম্মেলনে তিনি সভাপতি পদে প্রার্থী হচ্ছেন না। কেন হচ্ছেন না? তার পরবর্তী গন্তব্য কোথায়, এসব বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলাপচারিতা করেছেন news39.net এর স্টাফ রিপোর্টার মোঃ আল-আমিনের সাথে।

মোঃ আল-আমিনঃ আপনি দোহার উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পদে কি প্রার্থী হবেন?

নজরুল ইসলাম বাবুলঃ না, আমি প্রার্থী হবো না।

 

মোঃ আল-আমিনঃ আপনি প্রার্থী না হলে কাকে সভাপতি হিসেবে দেখতে চান?

নজরুল ইসলাম বাবুলঃ উপজেলার চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন এবার সভাপতি হবেন বলে আমার প্রত্যাশা।

মোঃ আল-আমিনঃ সভাপতি পদে একজনের বেশি প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকার কারনটা যদি বলতেন?

নজরুল ইসলাম বাবুলঃ আমি যদি বুঝি নির্বাচন করে আগাইতে পারবো না, তাহলে আমি দাঁড়াবো কেন? এ কারণেই একজনের বেশি প্রতিদ্বন্দ্বী নেই।

মোঃ আল-আমিনঃ তাহলে দোহার উপজেলার রাজনীতি নিয়ে আপনার ভবিষ্যত ভাবনা কি?

নজরুল ইসলাম বাবুলঃ রাজনীতি থেকে এখন আমি রিটায়ার্ড করতে চাই। আমার বাবা একজন পুলিশ অফিসার ছিলো, সরকারি চাকরি করতো । ১৯২২ সালে এসএসসি পাশ করেছেন, ১৯২৪সালে আমার বাবা চাকরি করেছে ব্রিটিশ পুলিশে। দেশ যখন স্বাধীন হইলো তখনো তিনি পুলিশে ছিলেন। তখন আমার বাবা বলতেন, সরকারি চাকরির মেয়াদ হলো ৩২ বছর। এর পরে রিটায়ার্ড করতে হয়। আমার রাজনীতির বয়স ৫২ বছর পার করে ৫৩ বছর শুরু হয়েছে। আমি ১৯৬৯ সালে শুরু করছি এখন ৫৩ বছর চলছে তাই আমি চাইনা এবয়সে আর রাজনীতি করি।

অন্য খবর  নবাবগঞ্জ ইসলামী ব্যাংক থেকে গ্রাহকের দুইলক্ষ টাকা উধাও

মোঃ আল-আমিনঃ আপনি কি মনে করেন দোহার উপজেলায় রাজনৈতিকভাবে এখনো সুযোগ্য ব্যক্তি গড়ে উঠেনি?

নজরুল ইসলাম বাবুলঃ এটা আমার বোঝা মুশকিল এবং বলাও মুশকিল। কারণ হলো আমাদের যে এমপি মহোদয় আছে তাকে আমরা অনেক সম্মান করি ও মানি। আমি যদি বুঝি এমপি মহোদয় কাউকে কোন পদে চাচ্ছেন, সেখানে এমপি মহোদয়কে সম্মানার্থে কারো প্রতিযোগীতায় না থাকাটাই উচিত। সেক্ষেত্রে কারো ক্যান্ডিডেট থাকাটা অনেক বোকামি হবে। এমপি মহোদয় আমাকে বলছিলো নির্বাচন করতে কিন্ত আসলে কেউই কি জেনে শুনে বিষ পান করে ?

মোঃ আল-আমিনঃ এবার সম্মেলন কি ভোটের মাধ্যমে হবে নাকি সিলেকশন এর মাধ্যমে হবে?

নজরুল ইসলাম বাবুলঃ সভাপতি পদে সিলেকশনের মাধ্যমে হবে কোন পার্থী থাকবে না। আর সাধারন সম্পাদক পদে ৪ জন প্রার্থী আছেন। বর্তমান সাধারণ সম্পাদক আলী আহসান খোকন সিকদার, নুরুলহক বেপারি,আউলাদ হোসেন, জয়নাল আবেদীন।

মোঃ আল-আমিনঃ রাজনীতি থেকে রিটায়ার্ড নিলে দোহার পৌরসভার মেয়র পদে নির্বাচন করবেন কি?

নজরুল ইসলাম বাবুলঃ ইনশাল্লাহ, অবশ্যই। ওটাতো আর রাজনীতি পদ না। আমি দোহার পৌরসভার মেয়র পদে আমি নির্বাচন করবো এটা কোন রাজনীতি না।

অন্য খবর  সন্ত্রাসী হামলার শিকার সাংবাদিককে দেখতে হাসপাতালে দোহার প্রেসক্লাব সভাপতি সেক্রেটারী

 

মোঃ আল-আমিনঃ আপনি রাজনীতি থেকে রিটায়ার্ড নিলে রাজনীতির সাথে সম্পর্ক রাখবেন কিনা?

নজরুল ইসলাম বাবুলঃ যখন করবো, তখন চিন্তা করবো। প্রেক্ষাপট চেঞ্জ হতে পারে। আবার ভালো থাকতে পারে, আবার খারাপও থাকতে পারে।

 

মোঃ আল-আমিনঃ তাহলে আগামীতে আপনি কোন সামাজিক সংগঠনের সাথে সময় দিবেন কিনা?

নজরুল ইসলাম বাবুলঃ দেয়া যেতে পারে। সেক্ষেত্রেওতো আবার সিনিয়র হলেও জুনিয়র লেভেল থেকে শুরু করতে হবে।

মন্তব্য