হাসি ফুটেছে দোহারের পাট চাষীদের

268

হাসি ফুটেছে ঢাকার দোহারে সোঁনালী আঁশ পাট চাষীদের মুখে। পাটের বাম্পার ফলন ও ন্যায্য মূল্য পাওয়ায় চাষী পরিবারের এখন সুদিন বলে জানায় স্থানীয়রা।

দোহার উপজেলার মুকসুদপুর ইউনিয়নের মধুর খোলা, নারিশার চৈতাবাতর, পশ্চিমচর,জালালপুর, নয়াবাড়ির পানকুন্ড, বালেঙ্গাসহ বিশটি গ্রামের প্রায় এক হাজার পাট চাষী পরিবারে সদস্যরা ব্যস্ত হয়ে উঠেছে বাংলার সোঁনালী আঁশ পাট ঘরে তুলার জন্য।

রৌদে পাট খড়ি শুখানোর আগেই জ্বালানী হিসাবে জমি থেকে বিক্রি হয়ে যাচ্ছে। এবং দুর থেকে আসা পাইকেররা সারা দিনই চাষীদের বাড়িতে ঘুরাঘুরি করছে পাট নেওয়ার জন্য।

স্থানীয় কিছু পাইকেররা পাট চাষীর অগ্রিম টাকা দিচ্ছে। নয়াবাড়ির পানকুন্ডু গ্রামের রব ফকির জানান, টানা বর্ষণে কোন কাজ ছিলনা তাই এলাকায় অনেকের কাছেই টাকা ধার চেয়ে ব্যর্থ হয়েছি, আর এখন তারাই আমাদের অগ্রিম টাকা দিতে চাইছে।

Comments

comments