দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে নবাবগঞ্জে বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল

36
দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে নবাবগঞ্জে বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল

ঢাকার জেলার নবাবগঞ্জ উপজেলায় দ্রব্যমূল্য ও জ্বালানী তেলের দাম বৃদ্ধিসহ ভোলা জেলার ছাত্রদলের সভাপতি নুর-আলম এবং স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা আব্দুর রহিমের হত্যার প্রতিবাদে নবাবগঞ্জ উপজেলা বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ বিক্ষোভ মিছিল করেছে। কেন্দ্রীয় বিএনপির কর্মসূচির অংশ হিসেবে শনিবার (২৭ আগস্ট) সকালে ঢাকা জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার আবু আশফাকের নেতৃত্বে এ বিক্ষোভ মিছিল করা হয়।

উপজেলার বাগমারা থেকে বিএনপির নেতৃবৃন্দরা জড়ো হয়ে সকাল সাড়ে ১০টার সময় মিছিলটি বের হয়ে বাগমারা বাজার হয়ে সামনে দিকে গিয়ে সেখানেই নেতৃবৃন্দের বক্তব্যের মধ্যে দিয়ে বিক্ষোভ সমাবেশ শেষ হয়।

ঢাকা জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার আবু আশফাক বলেন, দ্রব্যমূল্যের লাগামহীন ঊর্ধ্বগতিতে দেশের মানুষ চরম বিপাকে আছে। সবকিছু মানুষের ক্রয়ক্ষমতার বাইরে চলে গেছে। মানুষ অসহায়। বাজার নিয়ন্ত্রণে সরকার সম্পূর্ণ ব্যর্থ। আওয়ামী লীগের ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের কারণেই জিনিসপত্রের দাম বাড়ছে। তাঁদের লুটপাটের কারণেই দেশের এই করুণ অবস্থা। দেশের মানুষ এই ব্যর্থ সরকারের কবল থেকে মুক্তি চায়। এসময় মিছিল থেকে জ্বালানী তেলসহ দ্রব্য মূল্যের দাম কমাতে বিভিন্ন ধরনের স্লোগান দিতে দেখা যায়।

অন্য খবর  নবাবগঞ্জে লাঙল নিয়ে লড়ছেন দুই নারী

এসময় উপস্থিত ছিলেন, নবাবগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতি আজাদুল ইসলাম হাই (পান্নু),নবাবগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম খন্দকার, দোহার উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মোঃ মাসুদ পারভেজ, নবাবগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক এরশাদ আল মামুন, দোহার উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আছির উদ্দিন খান বাচ্চু,দোহার উপজেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক এডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন,নবাবগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মামুন, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ মিজানুর রহমান, দোহার উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক জিএস সেন্টু ভুইয়া, ঢাকা জেলা যুবদলের সহ-সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান পবন,দোহার উপজেলা যুবদল নেতা মোঃ জহিরুল ইসলাম,দোহার উপজেলা সেচ্ছাসেবক দলের সদস্য সচিব তানভীর নিশু, মাহমুদপুর ইউনিয়ন বিএনপি সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার রেজাউল খান,ঢাকা জেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক মোঃ রবিউল ইসলাম অমিত, দোহার উপজেলা ছাত্রদল নেতা আলমগীর, সেলিম, রাশেদ প্রমুখ।

মন্তব্য