দোহারে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে বাল্যবিবাহ বন্ধ

319

দোহারে ১৩ বছরের কিশোরীকে বিয়ে করতে গিয়ে প্রশাসনের হাতে ধরা পরলেন ডা. আরিফুর রহমান(৩৮) পেশায় তিনি এমবিবিএস চিকিৎসক। এই চিকিৎসক নিজেকে অবিবাহিত পরিচয় দিয়ে এরই মধ্যে তিনটি বিয়ে করেছেন। গতকাল শুক্রবার রাতে ১৩ বছরের এক কিশোরীকে বিয়ে করতে গিয়ে ধরা পরেন আরিফুর রহমান। এই ঘটনাটি ঘটেছে দোহার উপজেলার সুতারপাড়া ইউনিয়নের ঘাড়মোড়া গ্রামে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট এ এফএম ফিরোজ মাহমুদ বলেন, আমরা খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে চলে যাই। তখন বাল্যবিবাহ সংঘটনের অপরাধে পাত্রকে(৩৮) ৬ মাসের কারাদন্ড এবং নাবালিকার পিতাকে ১০ হাজার টাকা অর্থদন্ড আরোপ করি। সে সময় উপস্থিত ছিলেন দোহার থানার অফিসার ইনচার্জ মোস্তফা কামালসহ আরো অনেকে।

দোহার থানার ওসি (তদন্ত) মাসুদুর রহমান জানান, শুক্রবার রাতে উপজেলার সুতারপাড়া ইউনিয়নের ঘারমোড়া গ্রামে একটি বাল্যবিবাহ হচ্ছে এমন সংবাদ পেয়ে পুলিশ সেখানে গিয়ে বর আরিফুর রহমানকে আটক করে। আরিফুর রহমানকে আটকের পর পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে জানাযায় সে পেশায় একজন চিকিৎসক। ২০০৬ সালে ঢাকার স্যার সলিমুল্লাহ মিটর্ফোড মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে এমবিবিএস পাশ করেন তিনি। শনিবার দুপুরে তাকে কারাগারে প্রেরণ করা হয় ওই চিকিৎসকে।

অন্য খবর  দোহারে জামাত শিবিরের ২ নেতাকর্মী গ্রেফতার

সাজাপ্রাপ্ত ডা. মো. আরিফুর রহমান বরিশাল সদর উপজেলার মো. সিয়ামের ছেলে।

মন্তব্য