দোহারে দুই কন্যা সন্তানের জনকের রহস্যজনক মৃত্যু

679
দোহারে দুই কন্যা সন্তানের জনকের রহস্যজনক মৃত্যু

ঢাকার দোহার উপজেলার লটাখোলা বিলেরপাড় এলাকার দুই কন্যা সন্তানের জনকের আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে. রবিবার (১৮ অক্টোবর) ভোর রাতে এ ঘটনা ঘটে বলে জানান নিহতের স্ত্রী। নিহত রবিউল ইসলাম (৩০) নবাবগঞ্জ উপজেলার টিকড়পুর এলাকার এয়ার আলীর ছেলে।

নিহতের স্ত্রী নিলুফা আক্তার (২৫) জানান, আমরা দুই বছর ধরে বাদশা মিয়ার এখানে ভাড়া থাকি। স্বামী স্ত্রীর মধ্যে কথা কটাকাটি হয় মাঝে মধ্যে তবে ঐ দিন তেমন কিছু হয়নি। আমার স্বামী আর আমি সন্ধ্যা রাতে পাশের বাড়ির একটি মেলায় গিয়েছিলাম রাত ১০/১১ টার দিকে বাসায় এসে রাতের খাবার খেয়ে ঘুমিয়ে পরি। রাত দু’টার দিকে ঘুম ভেঙ্গে গেলে দেখি সে আমার পাশে শুয়ে আছে। আমি আবার ঘুমিয়ে পরি। সকাল আনুমানিক ছয়টা সাড়ে ৬ টার দিকে তার মুঠোফোন আমার বালিশের পাশে বেজে উঠলে আমার ঘুম ভেঙ্গে যায়। আমার স্বামী যমুনা বাসের হেলপার তাই সকালে সে আমাকে ঘুমে রেখেই কাজে চলে যায়। কিন্তু আজ তার মুঠোফোন বাসায় দেখে আমি অবাক হই। পরে শুয়া থেকে উঠে তাকে খোজ করলে বারান্দায় গিয়ে দেখি সে ফাঁসি দিয়ে ঝুলে আছে। তখন আমার আত্নচিৎকারে প্রতিবেশীরা ছুটে আসে। নিহতের দুইটি কন্যা সন্তান রয়েছে। বড় মেয়ে রাবেয়া (৮) ছোট মেয়ে লামিয়া (৫)।

অন্য খবর  জঙ্গিদের নীল নকশা জাতিকে ভয়ঙ্কর বিপদে ফেলছে : সিপিবি

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, নিহত রবিউল ইসলাম বসত ঘরের বারান্দার চালের কাঠের আড়ের সাথে বউয়ের ওড়না গলায় পেচিয়ে পায়ের নিচে প্লাস্টিকের ফলের ঝুঁড়ি দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে ঝুলে আছে।

এবিষয়ে দোহার থানা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আরাফাত হোসেন বলেন, দোহার থানা পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনা স্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করেছে। লাশ সুরতহাল করে ময়না তদন্তের জন্য ঢাকায় প্ররন করার প্রস্তুতি চলছে। ঘটনাটি আত্মহত্যা বলে এখন পর্যন্ত ধারনা করা হচ্ছে। তবে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আসলে সঠিক তথ্য জানা যাবে।

মন্তব্য