দেশে নির্বিঘ্নে ব্যবসা করেন জাপানিরা: সালমান এফ রহমান

38
সালমান এফ রহমান

দেশে জাপানিরা স্বদেশের অনুভূতি পান এবং নির্বিঘ্নে কাজ করতে পারেন বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি খাত ও শিল্পবিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান।

সালমান এফ রহমান বলেন, ‘জাপানের বিনিয়োগকারীরা বাংলাদেশে নিজের দেশের অনুভূতি পান। এখানে তারা কোনো ধরনের সমস্যার মুখোমুখি হন না। নির্বিঘ্নে কাজ করতে পারেন।’বাংলাদেশ ও জাপানের কূটনৈতিক সম্পর্কের ৫০ বছরপূর্তি উপলক্ষে হাইব্রিড ফর্মে আয়োজিত ‘ইনভেস্টমেন্ট ফ্লাশ মব’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) ও বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন সংস্থা (বিডা) যৌথভাবে অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।জাপানের টোকিওতে এএনএ ইন্টারন্যাশনাল হোটেলে মঙ্গলবার এ আয়োজনে দুই দেশের বিনিয়োগকারী, শিল্পপতি, ব্যবসায়ী ও গণমাধ্যমকর্মীরা অংশ নেন।

সালমান এফ রহমান বলেন, ‘জাপানের বিনিয়োগকারীরা বাংলাদেশে নিজের দেশের অনুভূতি পান। এখানে তারা কোনো ধরনের সমস্যার মুখোমুখি হন না। নির্বিঘ্নে কাজ করতে পারেন।’জাপানের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ককে ‘বিশেষ’ তকমা দিয়ে তিনি বলেন, ‘জাপান বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দেয়া প্রথম দেশগুলোর একটি। দুই দেশের মধ্যে বিশেষ এক সম্পর্ক রয়েছে। এটা ভ্রাতৃত্বের সম্পর্ক। সর্বপ্রথম বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাপান সফর করেন। এরপর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৫ বার জাপান ভ্রমণ করেছেন। জাপানের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক ভালো অবস্থানে রয়েছে। ইতোমধ্যে দেশের অবকাঠামো খাতে জাপানি বিনিয়োগকারীরা যুক্ত হয়েছে।’

আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে বাংলাদেশের উন্নয়ন ও বিনিয়োগ সম্ভাবনাকে তুলে ধরার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীর এই উপদেষ্টা বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এখন ডিজিটাল দেশে রূপান্তরিত হয়েছে। আগামীতে আরও স্মার্ট বাংলাদেশ হবে।’জাপানকে ধন্যবাদ জানিয়ে সালমান এফ রহমান বাংলাদেশের উন্নয়নে আগামীতেও জাপানের সহযোগিতা কামনা করেন।

এ সময় চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলার বিষয়ে আলোকপাত করেন তিনি।

বিএসইসি চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন জাপানে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত শাহাবুদ্দিন আহমেদ ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মাসুদ বিন মোমেন।বিডার নির্বাহী চেয়ারম্যান লোকমান হোসেন মিয়া এবং বিএসইসি কমিশনার শেখ শামসুদ্দিন আহমেদও অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

বিদেশি বিনিয়োগ আহ্বানের লক্ষ্যে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি ২০২১ ও ২০২২ সালে দুবাই, নিউইয়র্ক, ওয়াশিংটন, লস অ্যাঞ্জেলেস, সান্তাক্লারা, জুরিখ, জেনেভা, লন্ডন, ম্যানচেস্টার এবং আবুধাবিতে বিনিয়োগ সম্মেলন করেছে ঢাকা।

আপনার মতামত দিন