ঢাকা-১ আসন নিয়ে জটিলতায় মহাজোট; নির্বাচন হতে পারে দলগত ভাবেই

2196
ঢাকা-১

ঢাকা-১ আসন নিয়ে আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টিতে তৈরি হয়েছে দুরত্ব। আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টির দুই হেভিওয়েট প্রার্থীর অমনোননীয় মনোভাবের কারনে উন্মুক্ত হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। একদিকে গত তিন বছর দোহার ও নবাবগঞ্জের বিভিন্ন উন্নয়ন কাজে সরাসরি ত্বত্তাবধান করা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বেসরকারি উন্নয়ন বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান, অপরদিকে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট আব্দুল মান্নান খানকে পরাজিত করে এমপি নির্বাচিত হওয়া জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও যমুনা গ্রুপের ডিরেক্টর সালমা ইসলাম। ফলে চাইলেও এই আসন নিয়ে সমাঝোতায় আসতে পারছেন না আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টি। ফলে দুই দল থেকেই নির্বাচন করতে পারেন দুই হেভিওয়েট প্রার্থী। ফলে উন্মুক্ত হয়ে যেতে পারে এই আসন। নিজ নিজ কর্মী ও সমর্থকদের নিয়ে নির্বাচনে অংশ নিতে পারে মহাজোটের অন্যতম বড় দুইটি দল আওয়ামী লীগ ও জাতীয়পার্টি।
জানা যায়, গত সপ্তাহের শুরুতে দল থেকে সালমান এফ রহমানকে ঢাকা – ১ এ মনোনয়ন দিতে দলের সভাপতি ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে অনুরোধ করেন শেখ রেহেনা, শেখ সেলিমসহ শেখ হেলাল। তখন দল থেকে তাকে কাজ চালিয়ে যেতে গ্রীন সিগন্যাল ও দেয়া হয়। কিন্তু হটাৎ ই দৃশপট পালটে যায়, মংগলবার রাতে সালমা ইসলাম দেখা করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে। সেসময় জাপা চেয়ারম্যান এরশাদ তার দলে সালমা ইসলামের গুরুত্ব তুলে ধরে যেভাবেই হোক ঢাকা -১ আসন চান। এছাড়া বিগত সংসদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগ দলীয় এমপি ও মন্ত্রী আব্দুল মান্নান খানকে পরাজিত করে তিনি এমপি হয়েছিলেন, সে কথাও স্মরণ করিয়ে দেন। বিনিময়ে তিনি তার নিজের ঢাকা-১৭ বা নারায়ণগঞ্জ -১ যে কোন আসন ছাড় দেয়ার ওয়াদা দেন। এতে করে বৃহস্পতিবার গণ সং যোগে দোহার নবাবগঞ্জে আসেন সালমা ইসলাম। কিন্তু সালমান এফ রহমান গত ৩ বছর, দোহার নবাবগঞ্জে তার অবিরাম গণ সংযোগ ও উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের চিত্র তুলে ধরে একক প্রার্থী হিসাবে মনোনয়ন চান। সেক্ষেত্রে দ্রুত সিদ্ধান্ত জানানোর প্রতিশ্রুতি দেয়া হয়। এমন অবস্থায় জাপাকে ৩১ আসন দিলেও, ঢাকা-১ আসন আওয়ামীলীগ ও জাতীয় পার্টি উভয়ের নির্বাচনের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হতে পারে বলে জানা গেছে। দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও এ আসনটি আওয়ামীলীগ এবং জাতীয়পার্টির জন্য উন্মুক্ত ছিল। সে সময় আসনে প্রার্থী ছিলেন বর্তমান এমপি সালমা ইসলাম ও সাবেক মন্ত্রী আব্দুল মান্নান খান।

অন্য খবর  বান্দুরায় যাত্রী ছাউনি এখন এন মল্লিকের দখলে

Comments

comments