ছোট্ট আসাদ বাওয়ালী রোজা রাখবে সবগুলি

140

ছবির ছেলেটির নাম আসাদ বাওয়ালী। বয়সও বেশি নয়, আবার শারীরিকভাবেও তেমন সুগঠিত নয়। বয়স মাত্র ৯। আর এই বয়সেই সবগুলো রোজা রাখছে আসাদ। ছোট্ট আসাদ কাঠালীঘাটা মাসুম মিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেনীর ছাত্র। স্কুলে পড়াশোনায় সে মেধাবী। সৌদিআরব প্রবাসী মোঃ হাফিজুর রহমান বাওয়ালীর ছেলে। ঢাকার নবাবগঞ্জ উপজেলার বান্দুরা ইউনিয়নের কাঠালীঘাটা গ্রামে আসাদের বাসা। বৈশাখ মাসের প্রচন্ড গরমে বড়দেরকে হার মানিয়ে সব রোজা রাখছে ছোট্ট আসাদ। বৃহস্পতিবার আসাদের ২৬ টি রোজা হয়ে গেছে।

আসাদের মা বলেন, আমার ছেলে গত ৩ বছর ধরে রোজা রাখছে। প্রথম বছরেই ২৬ টি রোজা পালন করেছে। পরের বছর ৫ টি রোজা রেখে, এবার সব রোজা রাখবে। আমি প্রতিদিন আসাদকে সাহরীর সময় ডাক দিয়ে উঠিয়ে, রোজা রাখতে বলি এবং উৎসাহ দেই। আর ফজরের সময় মসজিদে পাঠাই। নামাজ ও পড়ে আসাদ।

ছোট্ট আসাদ বলেন, আমি রোজা রাখি। আমার রোজা রাখতে একটু কস্ট হলেও আমি এবার সব গুলো রোজা রাখবো। আমার পরিবারের সবাই আমাকে রোজা রাখতে উৎসাহ দেন। আমার ভালো লাগে রোজা রাখতে। আমি নামাজ পড়তে যাই, আমাদের বাড়ির লগেই মসজিদ।

অন্য খবর  পুলিশ সেবা সপ্তাহ উপলক্ষে নবাবগঞ্জ থানার বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা

আসাদদের বাসায় গিয়ে খোজ নিলে, আসাদদের বাসায় বেড়াতে আসা আসাদের ফুফু বলেন, আমি অবাক হয়ে যাই, এই প্রচন্ড রোদ ও গরমে আমার ভাতিজা কিভাবে সব রোজা রাখছে।আমাদের বড়দের এই গরমে রোজা রাখতে হিমশিম খাচ্ছি। আমার গর্ব হয় আসাদ কে নিয়ে। ইসলামি নিয়ম পালনের দিকে ধাবিত হওয়ায়। আর আমি মনে করি আমাদের আসাদের মতো ছোট থেকে সিয়াম পালনে প্রতিটি পরিবার, তাদের ছেলে- মেয়েদের ছোট থাকতে অভ্যাস করালে বড় হয়ে তাদের আর কস্ট হবে না আল্লাহর দেওয়া বিধান পালন করতে।

আসাদের রোযা রাখার বিষয়টি সকল শিশু কিশোরদের ধর্মীয় অনুশাসন মেনে চলতে উৎসাহিত করবে।

মন্তব্য