খালপাড় প্রবাসী কল্যান সমবায় সমিতির পক্ষ থেকে ইফতার মাহফিল

734

দোহারের জয়পাড়ার নিকটবর্তী বৌ বাজারে খালপাড় প্রবাসী কল্যান সমিতির পক্ষ এক ইফতার মাহফিলের আয়োজন করা হয়। মূলত প্রবাসীদের উদ্যোগে করা এই সংগঠনের মূল উদ্দেশ্য প্রবাসীদের ভাগ্য উন্নয়ন এবং বিভিন্ন সুবিধা-অসুবিধায় তাদের পাশে থাকা। অনুষ্ঠানে সমিতির প্রবাসে থাকা সদস্যদের পরিবারের সদস্য এবং এলাকার মুরিব্বীদের নিয়ে এই ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়া এই ইফতার পার্টির সাথে দুখাই ফকিরের কুলখানির আয়োজনও করে এই সংগঠনটি।

দোহার-নবাবগঞ্জে বিদ্যুতের লোডশেডিং লেগেই আছে মো. কাজী সোহেল, দোহার-নবাবগঞ্জ (ঢাকা) সংবাদদাতা০৯ জুন, ২০১৭ ইং ঢাকার দোহার-নবাবগঞ্জ উপজেলা নিয়ে গঠিত ঢাকা পল্লী বিদ্যুত্ সমিতি-২। এখানে যে পরিমাণ বিদ্যুত্ থাকা প্রয়োজন তার সবটুকুই রয়েছে বলে জানান ঢাকা পল্লী বিদ্যুত্ সমিতি-২ এর জেনারেল ম্যানেজার মো. আলমগীর হোসেন। তবে স্থানীয়দের অভিযোগ জ্যৈষ্ঠের প্রচণ্ড গরমে যেখানে মানুষ রীতিমত হিমশিম খাচ্ছে সেখানে ২৪ ঘণ্টায় মধ্যে ১২ থেকে ১৪ ঘণ্টাই বিদ্যুত্ পাচ্ছে না দোহার-নবাবগঞ্জবাসী। আর এই ঘন ঘন লোডশেডিংয়ে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন। দিনে ও রাতের বেশিরভাগ সময় বিদ্যুত্ না থাকায় থমকে যাচ্ছে মানুষের স্বাভাবিক কাজ-কর্ম। তবে পল্লী বিদ্যুত্ কর্তৃপক্ষ বলছে, উপজেলা দু’টির কোথাও লোডশেডিং নেই। পল্লী বিদ্যুত্ গ্রাহকদের অভিযোগ সেহেরি, ইফতার ও তারাবির সময় বিদ্যুত্ থাকছে না। এছাড়া দিন ও রাতের বেশিরভাগ সময় পাওয়া যায় না বিদ্যুত্। টানা কয়েকদিনের লোডশেডিংয়ের কারণে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, বাড়ি-ঘর, দোকান-পাট, মার্কেট, হাট-বাজার, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন স্থানে লোকজনকে অসহনীয় দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। একবার বিদ্যুত্ চলে গেলে ৪-৫ ঘণ্টার আগে ফিরে আসার কোনো লক্ষণ নেই। ঘণ্টার পর ঘণ্টা লোডশেডিংয়ের কবলে পড়ে উপজেলা দু’টির প্রায় ১ লাখ ৪০ হাজার বিদ্যুত্ গ্রাহকের বর্তমানে ত্রাহি দশা। নবাবগঞ্জ উপজেলা ছোট গোবিন্দপুর, ময়মন্দী, হরিস্কুল, যন্ত্রাইল, শোল্লাসহ ২০/২৫টি গ্রাম ঘুরে জানা গেছে, সেখানে সকালে বিদ্যুত্ চলে যায়, আসে বিকালে। আবার সন্ধ্যায় বিদ্যুত্ গিয়ে ১ ঘণ্টা পর আসে। এরপর তারাবির সময় বিদ্যুত্ চলে যায় এবং ২ ঘণ্টা পর আসে। এছাড়াও সেহেরির সময় বিদ্যুত্ থাকে না। একই গ্রামের ডক মালিক (জাহাজ তৈরির প্রতিষ্ঠান) ব্যবসায়ী দীলিপ হালদার জানান, বিদ্যুত্ না থাকার কারণে ব্যবসা বাণিজ্যে অনেক লোকসান হচ্ছে। এভাবে চলতে থাকলে ব্যবসা ছেড়ে দিতে হবে। স্কুল শিক্ষার্থী সামিমা আক্তার জানান, প্রচণ্ড গরমে হিমশিম খাচ্ছি তার মধ্যে সকালে, দুপুরে এবং রাতের বেশির ভাগ সময়ই বিদ্যুত্ থাকে না। তাহলে আমরা পড়া-লেখা করবো কখন। এ বিষয়ে ঢাকা পল্লী বিদ্যুত্ সমিতি -২ এর এজিএম মো. শাজাহানের কাছে তথ্য জানতে চাইলে তিনি বলেন সাংবাদিকদের কোনো তথ্য দেওয়া হবে না। সমিতির জেনারেল ম্যানেজার আলমগীর হোসেন লোডশেডিংয়ের কথা অস্বীকার করে বলেন, আমাদের এই দোহার-নবাবগঞ্জ অঞ্চলের জন্য যে পরিমাণ বিদ্যুত্ প্রয়োজন তার সবটুকুই রয়েছে এখানে। কোনো লোডশেডিং নেই। তবে বিদ্যুত্ মেরামতের জন্য মাঝে মধ্যে লাইন বন্ধ রাখা হচ্ছে।

অনিরুদ্ধ যুব সংঘ ক্লাবের মাঠে আয়োজিত এই ইফতার মাহফিলে খাল পাড় প্রবাসী কল্যান সমবায় সমিতির পক্ষ থেকে মূল উদ্যোক্তা ছিলেন সৌদি আরব প্রবাসী ও সংগঠনের প্রতিষ্ঠাটা চেয়ারম্যান ব্যাপারী শওকত বেপারী,  সংগঠনের সভাপতি জুলহাস উদ্দিন ও আমেরিকা প্রবাসী সংগঠনের সিনিয়র সহ সভাপতি সফিউদ্দিন পিন্টু, সাধারন সম্পাদক মিজানুর রহমান এবং প্রবাসী আরো অনেকে।

দেশে থেকে অনুষ্ঠান সার্বিক তদারকি করেন মিনহাজ উদ্দিন, আব্দুল কাদের, আক্কাস মিয়া সহ অনেকে।

ইফতার মাহফিলে দেশ ও জাতির কল্যান কামনা করে দোয়া করা হয়।

Comments

comments