মূল বিষয়বস্তুতে যান

আপনি এখানে

Ad:youngjournalist

younjournalist

মামলাতেই বিএনপি কুপোকাত: কামরুল

বুধ, 05/16/2012 - 01:19

জাতীয় ডেস্ক, নিউজ ৩৯ ♦ আইন প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম বলেছেন, “বাটি চালান দিলেও ১৮ দলের সব লোক পাওয়া যাবে না। তারা দুটো মামলাতেই কুপোকাত হয়ে গেছে। সুতরাং, আন্দোলনের ভয় দেখিয়ে লাভ নেই।”

মঙ্গলবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধু একাডেমী আয়োজিত ‘যুদ্ধাপরাধীদের বিচার দ্রুত কার্যকর করা ও বিএনপি জামাতের দেশ বিরোধী কর্মকাণ্ড’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

কামরুল ইসলাম বলেন, “বিএনপি চট্ট্রগ্রামের মতো সোমবার ঢাকায় গণমিছিলের নামেও অরাজকতা সৃষ্টি করার পরিকল্পনা করেছিল। কিন্তু সরকারি গোয়েন্দা বাহিনীর কছে রিপোর্ট আসার কারণে সরকার গণমিছিলের অনুমতি দেয়নি।”
 
তত্ত্বাবধায়ক সরকার বিএনপি’র মূল দাবি নয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, “বিএনপি’র নেতারা মামলাকে ভয় পায়। তারা সত্যের মুখোমুখি হতে চায় না। এ কারণে ষড়যন্ত্র করছে। কিন্তু যত ষড়যন্ত্রই হোক যুদ্ধাপরাধীদের বিচার হবে। তারেক কোকো লুটেরাদের মামলা দ্রুতগতিতেই চলবে।”

বিএনপিসহ নব গঠিত আঠারো দলের সমালোচনা করে কামরুল ইসলাম বলেন, “বিএনপি মহাসচিব যে জোট নিয়ে আন্দোলনের হুমকি দেখান তিনি নিজেই সেই ১৮ দলের নাম বলতে পারবেন না। আমি জোর দিয়ে বলতে পারি ফখরুল ১৮ দলের সব নেতার নাম বলতে পারবেন না।”

বিএনপি নেতাদের বাঁকা পথ ছেড়ে সোজা পথে আসার আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, “আন্দোলন হরতাল করার গণতান্ত্রিক অধিকার তাদের রয়েছে। কিন্তু  আন্দোলনের নামে গাড়ি পুড়ে মানুষ মারা ও বোমা হামলার চেষ্টা হলে সরকার বসে থাকবে না।”

আওয়ামী লীগ ৪২ বছরে ক্ষমতায় আসতে পারবে না খালেদা জিয়ার এ বক্তব্যের কড়া সমালোচনা করে তিনি বলেন, “কোনো দলকে ক্ষমতায় বসানোর মালিক জনগণ। খালেদা জিয়া মালিক নন যে তিনি যাকে ইচ্ছা তাকে ক্ষমতায় বসাবেন। আগামীতেও সুষ্ঠ নির্বাচনের মাধ্যমে জনগণই নির্ধারণ করবে কারা রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় যাবে।”

তত্বাবধায়ক প্রসঙ্গে কোনো ফর্মূলা থাকলে সংসদে এসে উস্থাপন করার আহবান জানিয়ে আওয়ামী লীগের প্রসিডিয়াম সদস্য বাবু সতীশ চন্দ্র রায় বলেন, “আওয়ামী লীগকে আন্দোলনের ভয় দেখিয়ে করে লাভ হবে না। আন্দোলনের মাধ্যমেই আওয়ামী লীগের জন্ম। তত্ত্বাবধায়ক নিয়ে বিএনপি’র কোনো ফর্মূলা থাকলে সংসদে এসে আলোচনা করুন। তা গ্রহণ করা হবে। গণতন্ত্রের কোনো বিকল্প নেই।”

ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাজী মোহাম্মদ সেলিমের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি ফয়েজ উদ্দিন মিয়া, মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, কৃষক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এমএ করিম আবাহনী লিমিটেডের পরিচালক শেখ মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম।

শ্রেণীবিভাগ: 

Premium Drupal Themes by Adaptivethemes