ভারতে পর্ণ সাইট বন্ধঃ উত্তাল ভারতীয় গনমাধ্যম

298

নিউজ৩৯♦ সাড়ে ৮০০টিরও বেশি পর্ন ওয়েবসাইট ব্লক করার পর বিতর্ক এখন তুঙ্গে পুরো ভারতজুড়ে। পর্নহাব থেকে শুরু করে রেড ব্রেজার্স, রেড টিউব-এর মতো আন্তর্জাতিক স্তরের বড় বড় সব ওয়েবসাইট বন্ধের পর এখন প্রশ্ন ইন্টারনেটে কি সত্যিই এমন ধরনের নিষেধাজ্ঞা আনা সম্ভব? বিশেষজ্ঞরা কিন্তু বলছেন এমন ধরনের নিষেধাজ্ঞা ইন্টারনেটে আরোপ করা একেবারেই পণ্ডশ্রম। কিন্তু কেন?

এক নজরে দেখে নেওয়া যাক…

১) সরকার যে সব ওয়েবসাইট বন্ধ করেছে সেগুলি VPN বা ওই জাতীয় কোনও সার্ভারের মাধ্যমে খুলে তা ফের ব্যবহার করা যায়। ওই জাতীয় সার্ভারগুলির কাজই হল ব্লক করা কোনও ওয়েবসাইটকে খুলে দেওয়া। ওইসব ওয়েবসাইটে গিয়ে ব্লক করা সাইটের লিঙ্ক দিলেই তা ফের খুলে যাবে। যদিও সরকার থেকে ব্লক করা হলে তা খুলতে পারে খুব কম VPN বা ওই জাতীয় সার্ভার।

২) টরেন্ট জাতীয় ওয়েবসাইট থেকে সহজেই পর্ন ডাউনলোড করে তা মোবাইল বা যে কোনও জায়গায় দেখা যায়। টরেন্ট ওয়েবসাইট ব্লক করা টেকনিক্যালি প্রায় অসম্ভব।

৩) পরিসংখ্যান বলছে সাম্প্রতিককালে হোয়াটইসঅ্যাপ-এর মাধ্যমে পর্ন ক্লিপ বা ছবি সবচেয়ে বেশি আদানপ্রদান হয়। সেক্ষেত্রে সবার আগে হোয়াটইসঅ্যাপ-এর মত সোশ্যাল সাইট বন্ধ করতে হয়। তা না হলে পুরো প্রক্রিয়া শুরুতেই গলদ আছে বলতে হয়।

 

অন্য খবর  ঢাকায় ল্যাপটপ মেলা শুরু ১৫ ডিসেম্বর

Comments

comments