শাইনপুকুরে মায়ের পাশে চিরনিদ্রায় কামরুল হুদা

121

নিউজ৩৯♦ ৮ রমজান শুক্রবার; বাইরে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি। ঠিক ঘড়ির কাটায় তখন ৩টা ৫৫ মিনিট। এমন সময় খবর এলো পৃথিবীর মায়া কাটিয়ে ঢাকার শমরিতা হাসপাতালে চিরতরে চলে গেলেন দোহার উপজেলার জনপ্রিয় চেয়ারম্যান কামরুল হুদা (কামাল)। তার মুত্যুতে দোহার উপজেলায় শোকের ছায়া নেমে আসে। কামরুল হদার মৃত্যুর খবর শুনে নেতাকর্মীরা ঢাকার শমরিতা হাসপাতালে তাদের প্রিয় এই নেতাকে এক নজর দেখার জন্য ছুটে যান। পরে তারাবির নামাজের পর রাজধানীর ধানমন্ডি ৮ নাম্বারে তার প্রথম জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। 

পরদিন শনিবার সকালে তার জন্মস্থান দোহারের শাইনপুকুড়ের বাড়ীতে নিয়ে আসা হয়। তার লাশ যখন তার নিজ বাড়ীতে এসে পৌছে  তখন এলকায় শোকের ছায়া নেমে ্আসে। এর পর সকাল ১১টার দিকে লাশ নিয়ে আসা হয় দোহার উপজেলা পরিষদে। সেখানে প্রচন্ড বৃষ্টির মধ্যে দলমত নির্বিশেষে তাকে এক নজর দেখার জন্য হাজার হাজার মানুষ ভির করতে থাকে। 

আসেন স্থানীয় সাংসদ ও জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য এ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম। এর পর বেলা ২টায় উপজেলার রতন স¦ধীনতা ভাস্কর্য সংলগ্ন রাস্তায় মরহুমের ২য় জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজায় ইমামতি করেন কুসুমহাটি ইউপি চেয়ারম্যান হাফেজ আব্দুল ওয়াহাব দোহারী। জানাজায় উপস্থিত ছিলেন মরহুমের বড় ভাই সাবেক যোগাযোগ মন্ত্রী নাজমুল হুদা, সাবেক প্রতিমন্ত্রী ও ঢাকা জেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল মান্নান, নারায়নগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি তৈমুর আলম খন্দকার, আইজিআর খান আব্দুল মান্নান, ঢাকা জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মাহাবুবর রহমান, নবাবগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান খন্দকার আবু আশফাক, জাসাস কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি সালাউদ্দিন মোল্লা, দোহার উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা নরুল করিম ভুইয়া,  বিশিষ্ঠ শিল্পপতি ইঞ্জিনিয়ার মেহবুব কবির, দোহার উপজেলা বিএনপির সভাপতি শাহাবুদ্দিন আহম্মেদ, সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব সিরাজুল ইসলাম ভুলু, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নজরুল ইসলাম বাবুল, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আলী আহসান খোকন, যুগ্ম সাধারন সম্পদক মোতালেব খান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মাসুদ পারভেজ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শামিমা রাহিম, নবাবগঞ্জ উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যন মহসিন রহমান আকবর বিলাশপুর ইউপি চেয়ারম্যান আলাউদ্দিন মোল্লা, মাহমুদপুর ইউপি চেয়ারম্যান তোফাজ্জল হোসেন, মুকসেদপুর ইউপি চেয়ারম্যান আ. হালিম, রাইপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান শওকত আলী নয়ন, উপজেলা যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক শাহিন মোল্লা, উপজেলা যুবদল সভাপতি আবুল হাসেম, পৌরসভা যুবদল সভাপতি দেওয়ান আব্দুল হক ফরিদ, উপজেলা ছাত্রনেতা আব্দুল হান্নান, জিএস সেন্টু ভূইয়া, জুলহাস উদ্দিন, কলেজ শাখার সভাপতি জহিরুল ইসলাম প্রমূখ। 

এর পর তাকে তার নিজ বাসা শাইনপুকুড়ে নেয়া হয়। সেখানে তার শেষ জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এতে এলাকাবাসীসহ আত্বীয়স্বজন অংশগ্রহন করেন। জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তার বাবা-মার পাশে দাফন করা হয়।  উল্লেখ্য তিনি ২০১৪ সালে দোহার উপজেলা নিবার্চনে বি.এন.পির বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে তিনি বিপুল ভোটে নিবার্চিত হন ।

Comments

comments