নবাবগঞ্জের উপজেলা ইঞ্জিনিয়ারের গাড়ি চালককে পিটুনি

190

নিউজ৩৯♦ রাজধানীর সচিবালয়ের রাস্তায় নবাবগঞ্জের উপজেলা ইঞ্জিনিয়ারের গাড়ি চালককে পিটুনি দিয়েছে মোটরসাইকেল আরোহী ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগ নামধারী ৩ যুবক। পুলিশ তাদের মোটরসাইকেলটি আটক করতে চাইলে পুলিশকে ফাঁকি দিয়ে পালিয়ে যায় তারা। রাজধানীর রেল মন্ত্রণালয়ের সামনে শনিবার বিকালে এ ঘটনা ঘটে।

প্রতক্ষ্যদশীরা জানায়, মন্ত্রণালয়ের সামনে গুলিস্তান জিরো পয়েন্টে যাবার সময় একটি মোটর সাইকেল (ঢাকা মেট্রো-ল ১৭-৬৩৪৫) খুব দ্রুত বেগে যাচ্ছিল। ঠিক তার পেছনে একটি মাইক্রো বাস (ঢাকা মেট্রো-ঘ ০২-২১০৩) যাচ্ছিল। হঠাৎ একজন পথচারী মোটরসাইকেলটির সামনে পড়ে যায়। সাথে সাথে মোটর সাইকেলটি ব্রেক করলে পেছনে থাকা মাইক্রো গাড়িটিও হার্ডব্রেক করে।

পথচারীর শরীরে কোন আঘাত না পেলেও মোটরসাইকেলের পেছনে মাইক্রোগাড়িটির কিছুটা ধাক্কা লাগে। সাথে সাথে মোটরসাইকেলের চালক কিছুটা আঘাত পায়। কিন্তু আঘাতটি তেমন গুরুতর নয়। হার্ডব্রেকের শব্দ শুনে আশপাশের জণসাধারণসহ কয়েকজন ট্রাফিক পুলিশ এগিয়ে আসার আগেই গাড়ির চালক রাসেলকে পিটুনি দেয়। জানা যায়, রাসেল নবাবগঞ্জ উপজেলা ইঞ্জিনিয়ার শাহজাহানের ব্যক্তিগত গাড়ি চালক।

অন্যদিকে ঘটনাস্থলেই পুলিশকে মোটরসাইকেল আরোহী ৩জন ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগের নেতাকর্মী বলে পরিচয় দেন। তারা হলেন- সফিক, অলি ও প্রিন্স।

তারা ৩জন জানান, ঢাকা মহানগন উত্তর ছাত্রলীগের মম্মেলনে অংশ নিতে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে যাচ্ছিলেন।

ঘটনাস্থলে এসে পুলিশ পিটুনি থেকে মাইক্রো গাড়ির চালককে রক্ষা করে মোটরসাইকেলটি আটক করল বলে তাদের কাছ থেকে গাড়ির চাবি নিয়ে নেয়। একপর্যায়ে ছাত্রলীগ কর্মী সফিক গোপনে প্রিন্সকে সরিয়ে দিয়ে পুলিশকে জানায়, তার বন্ধু প্রিন্স ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসা নিতে গেছে। তার অবস্থা খুবই খারাপ। এমসয় পুলিশ অন্যদিকে মনোযোগ দিলে তারা তাদের মোটরসাইকেলটি নিয়ে পালিয়ে যায়।

শাহবাগ থানার সাব ইন্সপেক্টর (এসআই) গৌতম মুঠোফোনে বলেন, তাদেরকে ছেড়ে দিয়ে ঢাকা মেডিকেলে খোঁজ নিতে গেলে সেখানে কাউকেই পাইনি। তারা যে মোটরসাইকেলের চাবি দিয়েছে সেটাও ভুয়া।

Comments

comments