নবাবগঞ্জে বিরোধপূর্ণ জমিতে মন্দির ভাংচুরের অভিযোগ

87

নিউজ৩৯♦ ঢাকার নবাবগঞ্জ উপজেলায় বিরোধপূর্ণ জমিতে অবস্থিত মন্দির ভেঙে প্রতিপক্ষ রান্নাঘর নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগ পেয়ে পুলিশ নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দিয়েছে। বুধবার সকালে উপজেলার কলাকোপা ইউনিয়নের খন্দকারহাটি মাধবপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্র ও অভিযোগে জানা গেছে, মাধবপুর মৌজার এসএ খতিয়ানের ১৫৯, এসএ দাগ নং ৪৪ এর প্রায় সাড়ে ১০ শতাংশ জমির মালিকানা নিয়ে গত ৭-৮ বছর ধরে রঞ্জিত বাড়ৈর সঙ্গে প্রতিবেশী মিরাজ ও মহারাজের বিরোধ চলে আসছে। এ নিয়ে আদালতে মামলাও বিচারাধীন। ওই জমিতে হিন্দু পরিবারের শত বছরের পুরনো রাধা-গোবিন্দ মন্দির অবস্থিত।

রঞ্জিত বাড়ৈর অভিযোগ, মিরাজ ও মহারাজরা প্রভাব খাটিয়ে আদালতে বিচারাধীন ওই জমি দখলের পাঁয়তারা করছে। এরই ধারাবাহিকতায় বুধবার সকালে মন্দিরের চালা ভেঙে দেয় মিরাজ ও মহারাজের লোকজন। সেখানে রান্নাঘর নির্মাণের প্রস্তুতি নিলে রঞ্জিত বাড়ৈ থানা পুলিশে অভিযোগ করেন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নির্মাণকাজ বন্ধ করে।

রঞ্জিত বাড়ৈ জানান, মন্দিরটি শত বছরের পুরনো রাধা-গোবিন্দ মন্দির। মিরাজ মহারাজ আইন অমান্য করে মন্দির ভেঙে পারিবারিক ঐতিহ্য নষ্ট করেছে। 

এ বিষয়ে মিরাজ বলেন, এটি তাদের ক্রয় করা সম্পত্তি। তারা রান্নাঘর করবেন বলে মন্দিরের বারান্দা ভেঙেছেন।

নবাবগঞ্জ থানার ওসি সায়েদুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, বাদীর অভিযোগে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Comments

comments