কাতারে দোহারের সহকর্মীর হাতে কুমিল্লার যুবক খুন

130

নিউজ৩৯♦ কাতারের আল খোর নামক স্থানে সহকর্মী দোহারের দুই যুবকের হাতে খুন হয়েছে কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার সোহেল হোসেন (২৫) নামের বাংলাদেশি এক যুবক। সোহেল হোসেনকে খুনের অভিযোগে আটক হয়েছেন দোহারের এমদাদ হোসেন ও লিটন।

নিহত সোহেল কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার শশইয়া গ্রামের আবদুল হাকিমের ছেলে। পরিবারে চার ভাই ও চার বোনের মধ্যে নিহত সোহেল হোসেন চতুর্থ। ঘাতক দুই যুবক এমদাদ হোসেন ও লিটনের বাড়ি ঢাকার দোহারে বলে জানা গেছে।

এদিকে নিহত সোহেলের মৃত্যুর খবর বরুড়ার শশইয়া গ্রামে তার বাড়িতে পৌঁছালে সেখানে স্বজনদের মাঝে শোকের মাতম শুরু হয়।

পরিবার সূত্রে জানা যায়, সোহেল হোসেন ৩ বছর পূর্বে কাতার যান। সেখানে তিনি একটি মুদি দোকান দিয়ে ব্যবসা করতেন। একসময় ঢাকার দোহারের অধিবাসী এমদাদ হোসেন ও লিটনের সাথে তার বন্ধুত্ব গড়ে উঠে। নিহত সোহেল কাতারে মুদি দোকার চালিয়ে বেশ কিছু টাকা জমিয়েছিল। তার টাকা আত্মসাৎ করতে গত ১০ মার্চ সকালের দিকে সোহেলকে কাতারের দূরবর্তী এলাকা আল খোর নামক স্থানে নিয়ে খুন করে এমদার ও লিটন। ঘাতক এমদাদ ও লিটনকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে প্রেরণ করেছে কাতার পুলিশ। মৃত সোহেলের লাশ কাতারের হামাদ হাসপাতালের মর্গে রয়েছে।

সোহেলের মেজো ভাই নুরুল হক জানান, ভাইকে হারিয়ে তারা মর্মাহত। টাকা আত্মসাতকে কেন্দ্র করে তার ভাইকে হত্যা করা হয়। তার ভাইয়ের লাশ দেশে আনতে তিনি সরকারের সহযোগিতা কামনা করেন।

কর্মসংস্থান ও জনশক্তি রপ্তানি অফিস কুমিল্লার সহকারী পরিচালক মিজানুর রহমান জানান, লাশ দেশের আনার বিষয়ে পরিবার থেকে লিখিত আবেদন করলে তারা সহযোগিতা করবেন।

Comments

comments