গঙ্গায় ১১৮ শহরের দুই-তৃতীয়াংশ নর্দমার বর্জ্য

184

নিউজ৩৯♦ ভারতের ১১৮টি শহরের নর্দমার দুই-তৃতীয়াংশের বেশি তরল বর্জ্য গিয়ে গঙ্গায় পড়ে। সম্প্রতি বিভিন্ন সরকারি সংস্থার বিশেষজ্ঞদের একটি দলের দেওয়া প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে। এই বর্জ্য মেশার ফলে গঙ্গা নদীকে আগের অবস্থায় ফিরিয়ে নেওয়ার প্রক্রিয়া লম্বা জের টানবে বলে মত দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। আজ শুক্রবার টাইমস অব ইন্ডিয়ার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, পশ্চিমবঙ্গ, ঝাড়খন্ড, উত্তর প্রদেশ, বিহার ও উত্তরাখন্ড রাজ্যের এসব শহর থেকে প্রতিদিন ৩৬ কোটি ৩৬ লাখ লিটার (তিন হাজার ৬৩৬ মিলিয়ন) বর্জ্য গিয়ে নর্দমায় পড়ে। অথচ সেসব শহরে থাকা ৫৫টি সুয়ারেজ ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্টের (এসটিপি) বর্জ্য ব্যবস্থাপনার ক্ষমতা রয়েছে মাত্র ১০ কোটি ২৭ লাখ লিটার।

বিশাল এই ব্যবধানের বিষয়টি উল্লেখ করে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয় পাঁচটি রাজ্যকে গঙ্গা ও এর শাখা নদীর তীরে গড়ে ওঠা এসব শহরের এসটিপির ব্যবস্থাপনা ক্ষমতা বাড়াতে বিস্তারিত প্রকল্প প্রতিবেদন জমা দিতে বলেছে।

বিশেষজ্ঞ দলটি গত বছরের ডিসেম্বরে তাদের প্রতিবেদন জমা দেয়। সেখানে এসব শহরের দুর্বল অবকাঠামোর বিষয়টি বিশেষভাবে তুলে ধরা হয়।

গতকাল বৃহস্পতিবার লোকসভায় এ প্রতিবেদনের বিস্তারিত তুলে ধরা হয়। এ সময় এক প্রশ্নের জবাবে দেশটির পানিসম্পদমন্ত্রী উমা ভারতী লিখিত জবাব দেন। সেখানে বলা হয়, এই নদীর সঙ্গে ১৪৪টি নিষ্কাশন নালির সংযোগ রয়েছে। এর মধ্যে বেশির ভাগই পশ্চিমবঙ্গের (৫৪)। আর বাকি রাজ্যগুলোর মধ্যে উত্তর প্রদেশের ৫১টি, বিহারের ২৫টি ও উত্তরাখন্ডের ১৪টি।

গত বছর দেশটির জাতীয় নদী গঙ্গাকে দূষণের হাত থেকে বাঁচাতে ‘নমামি গঙ্গে’ নামের একটি প্রকল্প গ্রহণ করা হয়। এর অংশ হিসেবে এসটিপি স্থাপন ও নিষ্কাশন নালিগুলো পানি পুনরায় ব্যবহার উপযোগী করে তোলার পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

‘সেভ গঙ্গা, সেভ হিমালয়াস’ শীর্ষক এক বৈঠকের কথা উল্লেখ করে উমা ভারতী বিভিন্ন ধর্ম ও মতাদর্শের নেতাদের প্রতি এ নিয়ে জাতীয় ধর্মসভা করার আহ্বান জানিয়েছেন। সেখান থেকে গঙ্গাকে পুনরায় বাঁচিয়ে তোলার কর্মসূচিতে জনগণকে অংশ নিতে ডাক দেওয়ার কথা বলেন তিনি।

Comments

comments