দোহার উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতির বিরুদ্ধে মামলাঃ ছাত্রলীগের প্রতিবাদ

65

নিউজ৩৯ঃ দোহার উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আমিনুল ইসলামের বিরুদ্ধে মামলা করেছে দোহার উপজেলা প্রশাসনের প্রকৌশলী কবির উদ্দিন শাহ। জানা গেছে, ঠিকাদারি কাজের বিষয়ের বচসা থেকে প্রকৌশলী কবির উদ্দিন শাহ দোহার ছাত্রলীগ ও এর সভাপতিকে নিয়ে বিরুপ মন্তব্য করায়, উপস্থিত ছাত্রলীগের এক কর্মী তার দিকে ক্যালকুলেটর ছুড়ে মারেন; এতে ক্ষিপ্ত হয়ে কবির উদ্দিন শাহ তার বিরুদ্ধে দোহার থানায় মামলা করেন৷

এই মামলা কে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ও ষড়যন্ত্রমূলক আখ্যা দিয়ে দ্রুত মামলা প্রত্যাহার ও কবিরউদ্দিন শাহএর অপসারণ দাবি করেছে দোহার উপজেলা ছাত্রলীগ।

প্রেস রিলিজে দোহার উপজেলা ছাত্রলীগের দাবী –
দোহার উপজেলা ছাত্রলীগের বিপ্লবী সভাপতি আমিনুল ইসলামের বড় ভাইয়ের তত্ত্বাবধানে একটি স্কুলের নির্মাণ কাজ চলছে। সেই কাজ বাবদ বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন অজুহাতে বিভিন্ন অংকের টাকা নিয়েছে উপজেলা প্রকৌশলী কবির উদ্দিন শাহ। ভবনের কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে এখন ছাদ ঢালাই জন্য দীর্ঘদিন ইঞ্জিনিয়ার কাজের প্রক্রিয়া নানা অজুহাতে ঝুলিয়ে রেখেছেন কবির উদ্দিন শাহ। এখন সেই ইঞ্জিনিয়ার কাজ শেষ করার পূর্বে মোটা অঙ্কের টাকা দাবি করে ছাদ ঢালাই এর জন্য। এক পর্যায়ে ছাত্রলীগ সভাপতিকে টাকার জন্য ফোনে গালিগাল করে এবং টাকা নিয়ে অফিসে আসতে বলে। ছাত্রলীগ সভাপতি অফিসে এসে বলে, আমার বড় ভাই তো শতভাগ মান অক্ষুণ্ণ রেখে কাজ করতেছে এখন আপনাকে বার বার টাকা দিবে কেন? আর ছাত্রলীগের একজন কর্মি হিসাবে আমি আর টাকা দিবো না৷

অন্য খবর  আসুন সবাই, এক হই সবাই

তখন দোহার উপজেলা ইঞ্জিনিয়ার ক্ষিপ্ত হয়ে বলেন এইরকম “বালের ছাত্রলীগ” আমার অনেক দেখা আছে।
এসব বলে লাভ হবে না।
ঘটনার সময় ছাত্রলীগ সভাপতির সাথে ছাত্রলীগের উপস্থিত নেতাকর্মীরা ছিলো। এসময় ছাত্রলীগের এক কর্মী ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে ক্যালকুলেটর ছুড়ে মারে।
আর এই ঘটনার প্রেক্ষিতে ইঞ্জিনিয়ার কবীর উদ্দিন শাহ নির্দোষ ছাত্রলীগ সভাপতির বিরুদ্ধে অনভিপ্রেতভাবে মামলা দায়ের করে।
এই মামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। একই সাথে দোহার উপজেলা থেকে কবির উদ্দিন শাহ এর অপসারণ চাই৷
– বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, দোহার উপজেলা।

Comments

comments