শ্রীনগরে মসজিদের সাইনবোর্ডকে পুঁজি করে ৫ কোটি টাকার সরকারী সম্পত্তি দখল

74
শ্রীনগর

শ্রীনগরে বালু ভড়াট করে প্রায় ৫ কোটি টাকার সরকারী সম্পত্তি দখল করা হচ্ছে। এই কাজে ঢাল হিসাবে মসজিদের সাইনবোর্ড ব্যবহার করা হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। শ্রীনগর-ভাগ্যকূল সড়কের জশুরগাও এলাকায় প্রায় ৫শ ফুট দৈর্ঘ ও ৪০ ফুট প্রস্থ সরকারী নয়নজুলী এই জায়গা ভড়াটের জন্য ভূমিদস্যু নুরুল ইসলাম-সেলিম সিন্ডিকেট ব্যবহার করছে অর্ধ শতাধিক বালুবাহী ট্রাক।

শ্রীনগর কলেজ গেট থেকে সামান্য পশ্চিম দিকে ৫ কোটি টাকা মূল্যের সরকারী এই জায়গা বাধাহীন ভাবে দখল করার জন্য টানানো হয়েছে জশুরগাও বায়তুল মামুর জামে মসজিদের সাইনবোর্ড। এই সাইনবোর্ডের একশ গজ পশ্চিমে রয়েছে আরেকটি মসজিদ। সাইনবোর্ড টানানো মসজিদের নামে নিজ মালিকানা সম্পত্তি থেকে মাত্র ৩ শতাংশ জমি ওয়াকফ করে দিয়েছেন দখলকারী সেলিমের বাবা বাকের আলী। ওই এলাকার একাধিক ধর্মপ্রান মানুষ এঘটনার সমালোচনা করে বলছেন ওয়াকফকৃত জমির স্থানে মসজিদ না তুলে সরকারী জমিতে মসজিদ তুলে বাকী জায়গা গ্রাসের পায়তারা চলছে। আল্লাহর ঘর নিয়ে এই ছলচাতুরী কোন ভাবেই গ্রহন যোগ্য নয়। স্থানীয় মুরব্বিরা জানান, এই সম্পত্তি ভূমি অফিসের মাধ্যমে কয়েক বছর আগেও জেলেরা জল মহাল হিসাবে একসনা ইজারা নিত। অথচ এখন তা দখল হয়ে যাচ্ছে অথচ ভূমি অফিস কোন ব্যবস্থাই নিচ্ছে না। জায়গাটি দখলে নিতে কেটে ফেলা হয়েছে লক্ষাধিক টাকা মূল্যের কয়েকটি সরকারী গাছ।

অন্য খবর  ১৫০ মন ধান নিয়ে ট্রাক পুকুরে : আহত ১

অনুসন্ধানে জানা গেছে, ভূমি দস্যু নুরুল ইসলামের নেতৃত্বে চক্রটি গত বছর ব্র্যাক অফিস সংলগ্ন কোটি টাকার পুকুর ভড়াট করে দখলে নেয়। এর আগে চক্রটি ওই এলাকার প্রায় দেড় একর সরকারী সম্পত্তি দখল করে সামান্য কিছু একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নামে লিখে দিয়ে বাকী সম্পত্তি গ্রাস করে নেয়। পর পর বড় রকমের দুটি দখলের ঘটনায় কোন বাধা না আসায় এই জমির ঘ্রান চক্রটির জিহবা লালায়িত করে তুলে। প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সামান্য জমি দিয়ে বাকিটা গ্রাস করার পলিসি তারা এখানেও গ্রহন করেছে বলে স্থানীয়রা জানায়।

দখলকারী সেলিম বলেন, তারা এই জায়গা জেলা পরিষদ থেকে লিজ নিয়েছেন। তবে লিজের জমির রকম পরিবর্তন করা যায় কিনা এই প্রশ্নের কোন উত্তর দিতে পারেননি। এই ব্যাপারে নুরুল ইসলামের মোবাইল ফোনে একাধিক ফোন দিলে তা বন্ধ পাওয়া যায়।

শ্রীনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহিদুল ইসলাম বলেন, কোন ভাবেই সরকারী জমি দখলের সুযোগ নেই। এই ব্যাপারে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) কে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

Comments

comments