আজ শুরু অ্যাশেজঃ গ্যাবায় কোন ইতিহাস?

89

‘ইংল্যান্ড যখন অস্ট্রেলিয়াতে গিয়ে অ্যাশেজ খেলে, তাদের প্রতিপক্ষ আসলে শুধু মাঠের ১১ জন ক্রিকেটার না, পুরো জাতিই’। নাসের হুসেইনের কথার সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করার মতো খুব বেশি কিছু নেই। অ্যাশেজের ব্যাপারটাই এমন, অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে হলে তো কথাই নেই!

অ্যাশেজ নিয়ে কথার শেষ নেই, ‘মুখেনো মারিতং জগত’-এর কী অভাব আছে! ন্যাথান লায়নই যেমন বললেন, এ অ্যাশেজ ক্যারিয়ার শেষ করে দিতে পারে ইংল্যান্ডের বেশ কিছু ক্রিকেটারের। ঠিক ২০১৩-১৪ অ্যাশেজের মতো। সেবার অস্ট্রেলিয়া অ্যাশেজ জিতেছিল, গত পাঁচবারের মধ্যে ওই একবারই।

সেবার অস্ট্রেলিয়াকে অ্যাশেজ জিতিয়েছিলেন মূলত মিচেল জনসন। সেই জনসন অবসর নিয়েছেন আজ বছর দুয়েক হলো। সেই অ্যাশেজ থেকে এখনও খেলছেন, এমন অস্ট্রেলিয়ান আছেন চারজন- স্মিথ, ওয়ার্নার, লায়ন ও হ্যাজলউড। সংখ্যাটা ইংল্যান্ডের বেশি- কুক, রুট, বেইরস্টো, মইন, ব্রড ও অ্যান্ডারসন। যদি অভিজ্ঞতা শব্দটা আনা হয়, তবে ইংল্যান্ডই এগিয়ে। টেস্টে শীর্ষ ৫ রান সংগ্রাহকের একজন ইংল্যান্ড দলে, শীর্ষ ২০ উইকেটশিকারির দুইজনও তাই।

অস্ট্রেলিয়া জনসনের স্মৃতি টেনে এনে রিভারভিউ মিরর দেখে গাড়ি চালাতে পারবে না, তবে সামনে তাকিয়েই তাদেরকে টেনে নিতে পারেন স্টার্ক, হ্যাজলউড, কামিন্সরা। অ্যান্ডারসন, ব্রড, ওকস, বলের সঙ্গে পঞ্চম বোলার হিসেবে ইংল্যান্ড অবশ্য বাড়তি সুবিধাটা মিস করবে স্টোকসের অনুপস্থিতিতে। সেই স্টোকসই অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে ইংল্যান্ডের শেষ সিরিজের বিভীষিকাতে ছিলেন একটু উজ্জ্বল! তবে যিনিই অবসর নিন, যিনিই অনুপস্থিতি থাকুন না কেন, অ্যাশেজ কিন্তু হাজির!

অন্য খবর  পাকিস্তানের সঙ্গে সিরিজ খেলছে না ভারত: শাহরিয়ার খান

রঙ্গমঞ্চ

৩৩ বছর হলো কেভিন মিচেল জুনিয়র গ্যাবাতে কাজ করছেন। ২৭ বছর ধরে এর প্রধান কিউরেটর তিনি। সেই কেভিন এবার বিদায় বলছেন গ্যাবাকে, অ্যাশেজের প্রথম টেস্টের উইকেটটিই হবে তার শেষ কাজ। দ্বিতীয় বা তৃতীয় দিন থেকে সেখানে বাউন্সের মাত্রা বেড়ে যাবে। আর ফুটমার্ক ও ফাটলের কারণে সুবিধা পেতে পারেন স্পিনাররাও। ১৯৮৮ সালের পর গ্যাবায় কোনও টেস্ট হারেনি অস্ট্রেলিয়া, ১৯৮৬ সালের পর এখানে কোনও টেস্ট জেতেনি ইংল্যান্ড।

যাঁদের ওপর চোখ

ক্রিস ওকসঃ মূলত বোলিংটাই তার কাজ। তবে স্টোকসের না থাকাটা দায়িত্ব বাড়িয়ে দিচ্ছে আরও। ব্যাটিংয়ে অবশ্য নিচের দিকেই নামবেন, তবে বাড়তি কিছু করে ফেললে অবাক হওয়ার মতো কিছুই থাকবে না। ওকস পারবেন স্টোকসকে ভুলিয়ে দিতে?

টিম পেইনঃ ৭ বছরে কতোকিছু হয়! ৭ বছর আগে কতোকিছু ছিল! ৭ বছর আগেই নিজের শেষ টেস্ট খেলেছিলেন টিম পেইন। হঠাৎ করেই অস্ট্রেলিয়া দলে ডাক পেয়েছেন, গ্লাভস হাতে বা ব্যাটিংয়ে, পেইনের প্রমাণ করার আছে অনেক কিছুই।

অস্ট্রেলিয়াঃ ডেভিড ওয়ার্নার, ক্যামেরন ব্যানক্রফট, উসমান খাওয়াজা, স্টিভেন স্মিথ(অধিনায়ক), পিটার হ্যান্ডসকম্ব, শন মার্শ, টিম পেইন(উইকেটকিপার), ন্যাথান লায়ন, মিচেল স্টার্ক, প্যাট কামিন্স, জশ হ্যাজলউড।

অন্য খবর  বেতন বাড়ছে ক্রিকেটারদের

ইংল্যান্ডঃ অ্যালেস্টার কুক, মার্ক স্টোনম্যান, জেমস ভিনস, জো রুট(অধিনায়ক), ডেভিড মালান, মইন আলি, জনি বেইরস্টো(উইকেটকিপার), ক্রিস ওকস, স্টুয়ার্ট ব্রড, জেমস অ্যান্ডারসন, জেক বল।

সংখ্যার খেলাঃ

মার্ক স্টোনম্যান হলেন অ্যান্ড্রু স্ট্রাউস অবসর নেওয়ার পর কুকের ১২তম ওপেনিং সঙ্গী। তিনটি টেস্ট খেলা স্টোনম্যান পারবেন জায়গাটা পাকাপাকি করতে?

আর ১২ উইকেট হলে দ্বিতীয় ইংলিশ ও সব মিলিয়ে ১৪তম বোলার হিসেবে ৪০০ উইকেট পূর্ণ হবে স্টুয়ার্ট ব্রডের।

Comments

comments