দোহার উপজেলায় পশু হাসপাতালের বেহাল দশা

420

বিশেষজ্ঞ ডাক্তারসহ ঔষুধের অভাব

মো: মামুন ♦

দোহার উপজেলার একমাত্র পশু হাসপাতালের অবস্থা শোচনীয়। এখানে প্রতিদিন হাঁসমুরগী,গরুছাগলসহ অসংখ্য পশুপাখি চিকিৎসার জন্য আনা হলেও ডাক্তারের সংখ্যা নগন্য।পশু হাসপাতালে সর্বমোট ডাক্তারের সংখ্যা ৮ জন। এছাড়া দোহার উপজেলার একমাত্র পশুহাসপালে কোন ল্যাবরেটরি না থাকায় পশুপাখির রোগ নির্ণয় করা যাচ্ছে না। এতে করে অনেক পশুপাখি সঠিক চিকিৎসার অভাবে মারা যাচ্ছে। এদিকে দোহার উপজেলায় ৯টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভা থাকলেও মাঠ পর্যায়ে চিকিৎসকের সংখ্যা মাত্র ৪ জন। যেখানে প্রয়োন সর্বনিন্ম ১০ জন। এছারাও এটি উপজেলার একমাত্র সরকারি পশুহাসপাতালবিনামূল্যে চিকিৎসা ও ঔষুধ সরবরাহের কথা থাকলেও ঔষুধের অভাবে তা সম্ভব হচ্ছে না। বছরে মাত্র ৮০ থেকে ৯০ হাজার টাকার ঔষুধ আসছে সরকার থেকে। এতে করে যারা দরিদ্র তারা সঠিকভাবে তাদের গৃহস্থলী পশুপাখির যত্ন ও সুচিকিৎসা নিতে পারছে না। এ বিষয়ে উপজেলা প্রানী সম্পদ কর্মকর্তা ডঃ রফিকুল ইসলাম বলেন, “দোহার উপজেলায় পশুহাসপাতালে অতিশিঘ্রই একটি ল্যাবরেটরি, বিশেষজ্ঞ ডাক্তার সহ ঔষুধ সরবরাহ বাড়াতে হবে এবং রোগে আক্রান্ত পশু হাসপাতালে আনার জন্য একটি কাবার্ড ভ্যান দরকার।

Comments

comments