ফেসবুক

এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সব বয়সী মানুষেরই বিচরণক্ষেত্র। তবে সেসব যোগাযোগের মধ্যে ফেসবুকটা বিশ্বজুড়েই সবার কাছে সমাদৃত। বাংলাদেশেও ফেসবুক ম্যানিয়া এখন তুঙ্গে। দিন দিন বাড়ছে ফেসবুকে আসক্তি ও বন্ধু। তবে ভুলে গেলে চলবে না, এটি একটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। এখানে সব বয়সীরাই আপনার বন্ধু হতে পারে, তারা আপনার স্ট্যাটাস ও চিন্তাধারা গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছেন। তাই কিছু বিষয় মনে রাখা উচিত-
স্ট্যাটাস হোক ছোট ও বুদ্ধিদীপ্ত: ফেসবুকে কারও দীর্ঘ স্ট্যাটাস পড়ার সময় বেশিরভাগ মানুষেরই নেই। তাই আপনার স্ট্যাটাসটা হতে হবে ছোট ও বুদ্ধিদীপ্ত।
আপত্তিকর লেখা বা ছবি নয়: ফেসবুকে আপনার ছোট ভাই, বড় ভাই, বয়স্ক আত্মীয় স্বজন, কলিগসহ বিভিন্ন বয়সী বন্ধু আছে। তাই প্রেম বা যৌনতা বিষয়ে, রক্ত মাখা বীভৎস ছবিসহ এমন কোনো আপত্তিকর লেখা বা ছবি পোস্ট করবেন না যাতে তারা বিব্রত হন। ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট বিবেচনা করুন ভেবে চিন্তে: ফেসবুকে অনেক অচেনা, কম চেনা লোকই ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠায়। তাই বলে সবাইকে কি আপনি ‘বন্ধু’ বানাবেন? এ ব্যাপারে সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। কারণ ঐ সব মানুষ ঠিক কেমন মানসিকতার তা আপনি জানেন না। আরেকটি বিষয় হলো অফিসের এক কলিগের ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট অ্যাকসেপ্ট করলে ও অন্য জনকে উপেক্ষা করলে বিষয়টি আপনার জন্য নেতিবাচক ফল নিয়ে আসতে পারে। যদিও কাকে আপনি বন্ধু করবেন তা একান্ত আপনার বিষয়, তবে উপেক্ষিত কলিগ এ ব্যাপারে অপমানিত বোধ করতেই পারেন।
সবার সব কিছুতেই কি লাইক দিতে হবে কি: ফেসবুকে নিজের এবং অন্যের স্ট্যাটাস ও ছবিতে লাইক দেওয়া ও পাওয়া নিয়ে চলে এক ধরনের চাপা প্রতিযোগিতা। ফেসবুকে অনেক স্টার লেখক আছেন, তারা যদি লেখেন ‘আজ সূর্য পূর্ব দিকে উঠেছে’, তাতেই হাজার খানেক লাইক পড়ে। আবার কেউ ভালো স্ট্যাটাস দিলেও থেকে যায় আড়ালে। হয়তো এটাই ফেসবুকের মজা। তবে কিছু স্ট্যাটাস আছে যেমন- ‘আমার বাবা মারা গেছেন’ অথবা ‘চাকরীটা ছেড়ে দিয়েছি’ এ জাতীয়। সেসবে লাইক দেওয়া মানে ওই স্ট্যাটাস দাতাকেই হয়তো অপমান করা। তাই আপনি কী লিখছেন তা ভেবে চিন্তে লিখুন। আর আপনি কীসে লাইক দিচ্ছেন, তাতে খেয়াল করুন।
কমেন্ট হতে হবে রুচিশীল: ফেসবুকে কারও স্ট্যাটাস বা ছবিতে কমেন্ট করা একটা সেনসেটিভ বিষয়। বন্ধু, কলিগ, বড় বা ছোট ভাই যার স্ট্যাটাস বা ছবিতেই কমেন্ট করেন না কেন, সেটা হওয়া চাই সুন্দর ও রুচিশীল। কারণ একেক জনের বিভিন্ন পর্যায়ের বন্ধু থাকে ফেসবুকে। আপনার কমেন্ট আক্রমণাত্মক বা অশোভন হলে ঐ বন্ধু, কলিগ বা ভাই বিব্র্রত হতে পারেন।

অন্য খবর  গরমে পান করুন কাঁচা আমের শরবত

Comments

comments