রাশিয়ায় ভগবদ গীতা নিষিদ্ধ করার উদ্যোগ: উত্তাল ভারতীয় লোকসভা

436

নিউজ৩৯.নেট ♦ হিন্দুদের ধর্মীয় গ্রন্থ ভগবত গীতা রাশিয়ায় নিষিদ্ধ করার জন্য দেশটির তোমস্কি শহরের আদালত যে উদ্যোগ নিয়েছে তা নিয়ে আজও উত্তাল ছিল ভারতের লোকসভা। প্রধান বিরোধীদল বিজেপি এ নিয়ে হট্টগোল শুরু করলে পরিস্থিতি সামলাতে বিবৃতি দিতে বাধ্য হয়েছেন ভারতীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এসএম কৃষ্ণা। তিনি জানিয়েছেন, রাশিয়ায় নিযুক্ত ভারতীয় রাষ্ট্রদূত এবং দিল্লিতে রাশিয়ার রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে এ নিয়ে কথা বলেছে সরকার। কৃষ্ণা বলেন, রাশিয়ার স্থানীয় ওই আদালতের কাজ দেখে মনে হচ্ছে- ‘কিছু অজ্ঞ এবং বিভ্রান্ত ব্যক্তি’ রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে ভভগবত গীতা নিষিদ্ধ করার চেষ্টা করছে।

ভগবত গীতার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগকে তিনি হাস্যকর বলেও মন্তব্য করেন। তিনি জানান, রাশিয়ায় ভারতীয় দূতাবাস এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য সার্বক্ষণিক তৎপর রয়েছে।

লোকসভায় কৃষ্ণার এ বক্তব্যকে টেবিল চাপড়ে সমর্থন জানান উগ্র হিন্দুত্বাবাদী দল বিজেপিসহ বিভিন্ন দলের সদস্য। এ সময় লোকসভায় বিজেপির সংসদীয় দলের নেতা সুষমা স্বরাজ প্রস্তাব দেন, ভগবত গীতাকে জাতীয় গ্রন্থ হিসেবে ঘোষণা করা হোক। তাহলে বিশ্বের আর কেউ এমন উদ্যোগ নিতে পারবে না।

এ ছাড়া, রাশিয়ার ভরসায় বসে না থেকে সরকার নিজেই উদ্যোগ নিয়ে তোমস্কি আদালতের ওই উদ্যোগের বিরোধিতা করুক বলেও দাবি তুলেছে বিজেপি। আরজেডি সভাপতি লালুপ্রসাদ যাদব এবং সমাজবাদী পার্টির প্রধান মুলায়ম সিং যাদবও তোমস্কি আদালতে গীতা-বিরোধী শুনানি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন সংসদে।

এদিকে, দিল্লিতে নিযুক্ত রুশ রাষ্ট্রদূত আলেকজান্ডার কাডাকিন এ ঘটনার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেছেন, ধর্মনিরপেক্ষ ঐতিহ্যের জন্য প্রসিদ্ধ রাশিয়ার আদালতে গীতা-বিরোধী আবেদন গ্রহণ করায় তিনি মর্মাহত।

অন্যদিকে, গিতা নিষিদ্ধ করার দাবিতে আবেদনের শুনানি ২৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত স্থগিত করে দিয়েছে রাশিয়ার তোমস্কি আদালত। ভগবত গীতা সামাজে উগ্রবাদ ও অস্থিতিশীলতা ছড়িয়ে দেয়- এমন অভিযোগ এনে রাশিয়ার তোমস্কি আদালতে আবেদন করে দেশটির একটি গির্জা।

এ ছাড়া, ওই আবেদনে বলা হয়-হিন্দুদের দেবতা কৃষ্ণ ‘মন্দ’এবং গীতা কখনোই খ্রিস্টান দৃষ্টিভঙ্গির সঙ্গে তুলনীয় নয়। গতকাল (সোমবার) এ বিষয়ে চূড়ান্ত রায় দেয়ার কথা থাকলেও তা ২৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত পেছানো হয়েছে।

Comments

comments