হার এড়ালেই গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স

33
ফ্রান্স

বিশ্বকাপ শুরুর আগেই অনেকের চোখেই ‘ফেভারিট’ ছিল তারা। গ্রুপপর্বের প্রথম দুই ম্যাচ জিতলেও এখনও ঠিক বিশ্বকাপের দাবিদার একটি দলের মত খেলতে পারেনি ফ্রান্স। অস্ট্রেলিয়া, পেরুকে হারালেও সমর্থকদের মন ভরাতে পারেননি এমবাপ্পে-গ্রিযমানরা। আজ ডেনমার্কের বিপক্ষে না হারলেই গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েই শেষ ষোলতে যাবে দিদিয়ের দেশমের দল। ফ্রান্সের মত হার এড়ালেই নিশ্চিত হবে ডেনমার্কের পরের রাউন্ডে যাত্রা।

পরের রাউন্ড নিশ্চিত, গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সম্ভাবনাও প্রবল। তবে এরপরও আজ ডেনমার্ককে কোনো প্রকার ছাড় দিতে নারাজ দেশম, “শেষ ষোল নিশ্চিত হয়েছে বলে এই ম্যাচ আমরা হালকাভাবে নেব- এমন ভাবার কোনো কারণ নেই। ডেনমার্কের বিপক্ষে জয়ের জন্যই খেলব আমরা। কোচিং ক্যারিয়ারে কোনোদিন দলকে ড্র করার মানসিকতা নিয়ে মাঠে নামাইনি। এবং আমি নিশ্চিত তারাও (ডেনমার্ক) তা-ই করবে।” বিশ্বকাপ শুরুর আগে ফ্রান্সকে ‘নিতান্তই সাধারণ এক দল’ বলেছিলেন ডেনিশ কোচ আগা হারিডা। আজকের ম্যাচের আগে স্বভাবতই এ বিষয়ে প্রশ্ন করা হল তাকে, “মত প্রকাশের স্বাধীনতা সবারই আছে। যার যা ইচ্ছা সে সেটা বলতেই পারে। এর মানে এই না যে সেটাই সত্য। তবে তার (হারিডা) এমনটা বলা উচিত হয়নি। ফুটবলাররাও এ ব্যাপারে অবগত। তবে এসব নিয়ে আমরা একেবারেই মাথা ঘামাচ্ছি না।” গতকালের সংবাদ সম্মেলনে হঠাৎই এবার নিজের শেষ বিশ্বকাপ খেলার কথা বলে সবাইকেই কিছুটা  চমকে দিয়েছিলেন পল পগবা। তবে দেশমের মতে, পগবার সময় ফুরিয়ে যায়নি এখনই, “ওর বয়স তো মাত্র ২৫। কাতার বিশ্বকাপের সময় হবে ২৯। ফ্রান্সের অন্যতম সেরা মিডফিল্ডার সে। আমার মনে হয় না এটা ওর শেষ বিশ্বকাপ।”

অন্য খবর  জার্মান কাপে শিরোপা জিতলো ডর্টমুন্ড

দেশমের মতই প্রতিপক্ষকে এক চুল ছাড় দিতে নারাজ হারিডা, “আমাদের পরের রাউন্ডে যাওয়াটা নিশ্চিত নয় এখনও। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচটি আমাদের জেতা উচিত ছিল। অনেকবার মাঝমাঠে বল হারিয়েছি আমরা। আক্রমণভাগেও বোঝাপড়ার অভাবটা ছিল চোখে পড়ার মত। আশা করি কাল ফ্রান্সের বিপক্ষে এসবের পুনরাবৃত্তি হবে না। আমরা জয়ের জন্যই খেলব, ড্র করার জন্য নয়।”

দলের খবর:

ইনজুরির কারণে ফ্রান্সের হয়ে আজ থাকছেন না ডিফেন্ডার স্যামুয়েল উমতিতি। তবে শেষ ষোল নিশ্চিত হয়ে যাওয়ায় একাধিক সূত্রের মতে মূল একাদশে একঝাঁক পরিবর্তন আনবেন দিদিয়ের দেশম। এমবাপ্পে, মাতুইদি, পগবাদের বদলে ফেকির, এন’জঞ্জি এবং ডেম্বেলের নামার সম্ভাবনা প্রবল। ইনজুরির কারণে ডেনিশদের হয়ে থাকছেন না মিডফিল্ডার উইলিয়াম কেভিস্ট। আর বহিষ্কারাদেশের কারণে খেলবেন না স্ট্রাইকার ইউসেফ পলসন।

সম্ভাব্য একাদশ:

ফ্রান্স (৪-২-৩-১): লরিস; সিদিবে, ভারান, কিম্পেম্বে, লুকাস; কান্তে, এনজঞ্জি; ডেম্বেলে, গ্রিযমান, ফেকির; জিরু

ডেনমার্ক (৪-২-৩-১): স্মেইকেল; ডালসগার্ড, কিয়ার, ক্রিস্টেনসেন, লারসেন; শোন, ডেলাইনি; ব্র্যাথওয়েট, এরিকসেন, সিস্টো; ইয়োর্গেনসন

সংখ্যায় সংখ্যায়:

বিশ্বকাপে এর আগে দু’বার দেখা হয়েছে ডেনমার্ক এবং ফ্রান্সের। ১বার করে জয় পেয়েছে তারা। ডেনিশদের বিপক্ষে নিজেদের শেষ ৭ ম্যাচের ৬টিতেই জিতেছে ফ্রান্স। ইউরোপের দেশগুলোর বিপক্ষে বিশ্বকাপে নিজেদের শেষ ৫ ম্যাচের ৪টিতেই হেরেছে ডেনমার্ক।

অন্য খবর  যৌন হয়রানির দায়ে ৯ বছরের কারাদন্ড রবিনহোর

ফ্রান্স বনাম ডেনমার্ক; গ্রুপ ‘সি’; ২৬ জুন, রাত ৮টা; লুঝনিকি স্টেডিয়াম; টেন ২/৩

Comments

comments