সিরাজদিখানে স্কুল শিক্ষিকাকে কুপিয়ে জখম

274

ঘুমন্ত অবস্থায় স্কুল শিক্ষিকা স্ত্রীর পিঠের ওপর বসে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করেছে পাষণ্ড স্বামী। মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার মালখানগর ইউনিয়নের নাটেশ্বর গ্রামে গত ৪ এপ্রিল মঙ্গলবার মধ্যরাতে এ ঘটনা ঘটে। আহত সানজিদা খানম রুপাকে সিরাজদিখান স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় তার বাবা বাদী হয়ে বুধবার থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন। ঘটনার পর থেকে রুপার পাষণ্ড স্বামী গা ঢাকা দিয়েছে। জানা গেছে, সানজিদা আক্তার রুপা নাটেশ্বর গ্রামের সমন খানের মেয়ে। তিনি নাটেশ্বর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা। তার স্বামী মশিউর রহমান মোক্তার একই গ্রামের মৃত আলী হোসেন হাওলাদারের ছেলে।

সিরাজদিখান থানার এসআই ইলিয়াস মিয়া জানান, বেকার মসিউরের সঙ্গে রুপার দীর্ঘদিন ধরে পারিবারিক কলহ চলছিল। রুপার মুঠোফোনে কথা বলা নিয়ে মসিউরের সন্দেহ। মঙ্গলবার দিবাগত রাত ২টার দিকে ঘুমন্ত অবস্থায় রুপার পিঠের ওপর বসে বড় কেচি দিয়ে তার পিঠ, হাত ও মাথায় কোপ দেয় মসিউর। পরে শরীরের বিভিন্ন স্থানে কুপিয়ে জখম করা হয়। রুপার চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে এলে মসিউর পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা রুপাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করে। রুপার বাবা সমন খান জানান, ৪ বছর ধরেই মসিউর তার মেয়েকে নির্যাতন করে আসছে। বিভিন্ন সময় তাকে ব্যবসা করতে কয়েক লাখ টাকাও দেয়া হয়েছে। কিন্তু সে বেকার থাকতে অভ্যস্ত হয়ে পড়ে। উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. দুলাল হোসেন জানান, রুপার পিঠ, কাঁধে ও বাম হাতে ধারালো অস্ত্রের ৮টি জখম রয়েছে।

অন্য খবর  ঢাকা জেলা যুবদলের আবু আশফাকের বক্তব্যের তীব্র প্রতিবাদ জ্ঞাপন

 

Comments

comments