সিম কিনতে লাগবে না জাতীয় পরিচয়পত্র

45

চালু হয়েছে ই-নিবন্ধনএখন থেকে নতুন মোবাইল সিম কিনতে বা নিবন্ধন করতে কোনও ফরম পূরণ করতে হবে না। দিতে হবে না জাতীয় পরিচয়পত্র। গ্রাহকের ব্যক্তিগত তথ্যের নিরাপত্তা জোরদার করতে এই উদ্যোগ নিয়েছে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)। সম্প্রতি কমিশন এই নির্দেশনা পাঠায় দেশের সব মোবাইলফোন অপারেটরগুলোকে। এ মাসের ১ তারিখ থেকে অপারেটরগুলো নতুন নিয়মে সিম বিক্রি ও নিবন্ধন করছে।

গ্রামীণফোন সূত্রে জানা গেছে, গ্রাহকদের জন্য ই-নিবন্ধন বা ইলেকট্রনিক রেজিস্ট্রেশন সেবা নিয়ে এসেছে গ্রামীণফোন। মঙ্গলবার রাজধানীর গুলশানের জিপি লাউঞ্জে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এই ব্যবস্থাটি তুলে ধরে।

বাংলালিংক সূত্রে জানা গেছে, অপারেটরটি দেশে ইলেকট্রনিক ও কাগজবিহীন সিম রেজিস্ট্রেশন ব্যবস্থা চালু করেছে।

বাংলালিংকের প্রধান নির্বাহী এরিক অস বলেন, এই উদ্যোগ মোবাইল গ্রাহকদের রেজিস্ট্রেশন ব্যবস্থা আরও সহজ করবে ও গ্রাহকদের ব্যক্তিগত তথ্যের সুরক্ষার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

জানা গেছে, ই-নিবন্ধন একটি কাগজবিহীন সিম নিবন্ধন প্রক্রিয়া যেখানে গ্রাহকদের নতুন সিম কেনার জন্য ছবি কিংবা কোনও আইডি (জাতীয় পরিচয়পত্র, পাসপোর্ট, ড্রাইভিং লাইসেন্স) দিতে হবে না। গ্রাহক সিম বিক্রেতাকে শুধু তার নাম, আইডি নম্বর, জন্মতারিখ, বর্তমান ঠিকানা ও আঙুলের ছাপ দেওয়ার মাধ্যমেই নতুন সিম কিনতে পারবেন। এছাড়া, গ্রাহককে গ্রাহক আবেদন পত্রও (এসএএফ) পূরণ করতে হবে না। গ্রামীণফোনের ডেপুটি সিইও ও সিএমও ইয়াসির আজমান বলেন, এই উদ্যোগ একটি নির্দিষ্ট ব্যবস্থার মাধ্যমে আমাদের গ্রাহকদের জীবনকে সহজ করার পাশাপাশি, টেলিযোগাযোগ ইকোসিস্টেমের ডিজিটাল প্রক্রিয়াকে আরও সামনে এগিয়ে নিয়ে যাবে।

অন্য খবর  এক ন্যাশনাল আইডিতে সর্বোচ্চ ২০টি সিম: তারানা

প্রাথমিকভাবে ই-নিবন্ধন প্রক্রিয়া শুধু নতুন সিম বিক্রির ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য হবে। ধীরে ধীরে এ প্রক্রিয়া মালিকানা হস্তান্তরসহ (গ্রাহক ও করপোরেট), দ্বৈত দাবি, মৃত্যুর মামলা নিষ্পত্তি, এমএনপি ও ঠিকানা পরিবর্তন প্রভৃতি ক্ষেত্রেও কার্যকর হবে।

এ সম্পূর্ণ প্রক্রিয়াই গ্রাহক সম্পন্ন করতে পারবেন বিনা খরচে। তবে নতুন সংযোগের দাম কিংবা প্রাসঙ্গিক সার্ভিস চার্জ প্রযোজ্য হবে।

Comments

comments