সামুদ্রিক মাছ
বিজ্ঞাপন

জার্নাল মলিকিউলার নিউট্রিশন অ্যান্ড ফুড রিসার্চে প্রকাশিত স্টাডি মতে, নিয়মিত মাছ খেলে হঠাৎ হার্ট অ্যাটাকে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা কমে যায়। নিয়মিত মাছ খেলে শরীরের জন্য উপকারী কোলেস্টেরল এবং ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিডের মাত্রা বাড়তে শুরু করে। ফলে হার্টের কোনও ধরনের ক্ষতি হওয়ার ঝুঁকি কমে যায়।

মাছে থাকা ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড মূলত দুই ধরনের হয়। একটি হচ্ছে ই পি এ এবং আরেকটি ডি এইচ এ। সামুদ্রিক মাছে প্রচুর পরিমাণে ডি এইচ এ পাওয়া যায়। এটি রক্ত জমাট বাধতে সাহায্য করে ও দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখে। সামুদ্রিক মাছে মাছে ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিডের পাশাপাশি ভিটামিন এ এবং ভিটামিন ডি প্রচুর পরিমাণে থাকে, যা একাধিক জটিল রোগকে দূরে রাখে। জেনে নিন নিয়মিত সামুদ্রিক মাছ খাওয়া জরুরি কেন।

  • প্রতিদিন সামুদ্রিক মাছ খেলে শরীকে ডিএইচ এ ফ্যাটি অ্যাসিডের মাত্রা বৃদ্ধি পায়, যা স্মৃতিশক্তির উন্নতিতে সাহায্য করে। এ কারণে পরিবারে অ্যালঝাইমার বা ডিমেনশিয়ার মতো রোগের ইতিহাস থাকলে চিকিৎসকরা বেশি করে সামুদ্রিক মাছ খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন।
  • সামুদ্রিক মাছ খেলে নার্ভের রোগ হওয়ার ঝুঁকি কমে। এতে হাতপায়ের অসারতা, হঠাৎ ক্লান্তি এবং পেশির কর্মক্ষমতা কমে যাওয়ার মতো রোগ থেকে দূরে থাকা যায়।
  • সামুদ্রিক মাছে থাকা ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখতে সাহায্য করে।
  • মস্তিষ্ক ভালো রাখেত নিয়মিত সামুদ্রিক মাছ খাওয়ার বিকল্প নেই।
  • লো ফ্যাট ডায়েট অনুসরণ করার পাশাপাশি প্রতিদিন যদি সামুদ্রিক মাছ খাওয়া যায়, তাহলে প্রস্টেট ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা হ্রাস পায়।
  • আমেরিকান জার্নাল অব সাইকোলজিতে প্রকাশিত এক গবেষণা অনুযায়ী, টানা ১ মাস সামুদ্রিক মাছ খেলে হার্টের কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। সেই সঙ্গে স্ট্রেস বা মানসিক চাপের কারণে হার্টের ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কাও কমে।
অন্য খবর  নবাবগঞ্জে সিভিল সার্জনের প্রেস ব্রিফিং

Comments

comments