সাভারে দুই শিশুকে ধর্ষণ

23
শিশু ধর্ষণ

সাভার ও আশুলিয়ায় পৃথক স্থানে দু’শিশুকে ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত এক ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ। সাভারের কাউন্দিয়া ও আশুলিয়ার গোমাইল এলাকায় এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে কাউন্দিয়ায় ধর্ষণের ঘটনায় হাসান (২০) নামে এক যুবককে আটক করা গেলেও গুমাইলে শিশু ধর্ষণের ঘটনায় ধর্ষক আজগর আলী পলাতক রয়েছে। উভয় ঘটনায় পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় মামলা করা হয়েছে।

সাভার থানা পুলিশ জানায়, শনিবার দুপুর ১২টায় উপজেলার গুমাইল উত্তরপাড়া এলাকার সিরাজুল ইসলামের ভাড়া বাড়িতে ৭ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণ করে লম্পট আজগর আলী (৬৪)। এ ঘটনায় রোববার ওই শিশুর মা আশুলিয়া থানায় একটি ধর্ষণ মামলা করলেও অভিযুক্ত ধর্ষক পলাতক থাকায় তাকে আটক করতে পারেনি পুলিশ। অভিযুক্ত ধর্ষক আজগর আলী গাইবান্ধা জেলার সুন্দরগঞ্জ থানাধীন শান্তিরাম এলাকার মৃত দারাজ উদ্দিনের ছেলে। সে আশুলিয়ার গুমাইল উত্তরপাড়া এলাকার একই বাড়িতে পার্শ্ববর্তী একটি কক্ষে ভাড়া থেকে স্থানীয় একটি কারখানায় নিরাপত্তাকর্মী হিসেবে কাজ করতো।

আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) রাকিবুল ইসলাম জানান, ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়ার পর শিশুটিকে উদ্ধার করে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ছাড়া পলাতক ধর্ষক আজগর আলীকে গ্রেপ্তারে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে। অন্যদিকে সাভারের কাউন্দিয়া এলাকায় ৭ম শ্রেণি পড়ুয়া এক স্কুলছাত্রীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক করে তাকে কৌশলে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করে হাসান নামে এক বখাটে। এ ঘটনায় থানায় মামলার পর অভিযুক্ত ধর্ষককে আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন সাভার মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) প্রাণ কৃষ্ণ।

অন্য খবর  সাভারে গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু

Comments

comments