সাধারণের কাছে অসাধারণ হয়ে উঠা দোহার থানা পুলিশ

110

সারা বিশ্বের মত বাংলাদেশও করোনা ভাইরাসের কালো ছোবল থেকে রেহায় পাইনি। প্রাণঘাতী এই করোনা ভাইরাস থেকে দেশের মানুষকে বাচাঁতে অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে ডাক্তার, নার্স, পুলিশ বাহিনী সহ বিভিন্ন পেশায় নিয়োজিত ব্যক্তিরা। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখছে পুলিশ প্রশাসন।

দোহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) সাজ্জাদ হোসেনের নেতৃত্বে দিনরাত নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছে দোহার থানা পুলিশ প্রশাসন। করোনা সংকটকালে দোহার থানা পুলিশ প্রশাসন জনগনের পরম বন্ধুর ন্যায় কাজ করে চলেছে। দোহারে যখন প্রথম করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দেয় তার পূর্বে থেকেই করোনার বিস্তার ঠেকাতে যাদের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মাঠে কাজ করতে দেখা যায় তারা হল দোহার থানা পুলিশ।

মধ্য রাতে গর্ভবতী মহিলাকে হাসপাতালে ভর্তি করা থেকে শুরু করে চিকিৎসা সেবা দেওয়া, গরিব ভ্যানচালককে সাহায্য করা প্রবাসীদের হোম কোয়ারেন্টিন নিশ্চিত করা, সচেতনমূলক মাইকিং সহ বিভিন্ন ইতিবাচক কর্মকান্ডে প্রত্যক্ষ ভাবে জড়িত ছিল দোহার থানা পুলিশ। এখন পর্যন্ত জনগণের সেবা দিতে গিয়ে দোহার থানা পুলিশের ১৬ জন কর্মকর্তা করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হন।

দোহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাজ্জাদ হোসেন জানান, আমরা জনগনের সেবক। জনগনের সেবা করাই আমাদের ব্রত। জনগনকে সেবা দিতে গিয়ে আমাদের ১৬ জন কর্মকর্তা প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হন। তারপরও আমরা দোহারের মানুষকে সেবা দিয়ে যাচ্ছি। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে আমরা সারাক্ষণ কাজ করে যাচ্ছি।

অন্য খবর  দোহারে স্বাধীনতা দিবসের প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত

দোহারের জনগনের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আপনারা সবাই ঘরে অবস্থান করুন, সামাজিক দুরত্ব নিশ্চিত করে চলাফেরা করুন, অকারনে ঘর থেকে বের হবেন না। আমরা আপনাদের সেবায় সব সময় নিয়োজিত আছি এবং থাকবো। এ সময় তিনি করোনা করোনা ভাইরাসের আক্রান্ত পুলিশ সদস্যদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করেন এবং সকলের কাছে দোয়া প্রার্থনা করেন।

Comments

comments