শিশুরাই ভবিষ্যতের সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ে তুলবে: প্রধানমন্ত্রী

12

আজকের শিশুরাই ভবিষ্যতের সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ে তুলবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘শিশুরাই আগামীতে দেশের নেতৃত্ব দেবে, সোনার বাংলা গড়ে তুলবে।’

মঙ্গলবার (২৬ মার্চ) সকালে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে শিশু-কিশোর সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতীয় স্টেডিয়ামে উপস্থিত হওয়ার পর জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন। এরপর প্যারেড কমান্ডার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সালাম জানান। পরে বেলুন ও শান্তির প্রতীক পায়রা উড়িয়ে ৪৯তম স্বাধীনতা দিবস ও শিশু-কিশোর সমাবেশ উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা শিশুদের এমনভাবে গড়ে তুলতে চাই, যারা বড় হয়ে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে দেশের জন্য কাজ করবে। আজকের শিশুরাই আগামী দিনের প্রধানমন্ত্রী, মন্ত্রী হবে, আমলা হবে, অন্যান্য বড় বড় পদে চাকরি করবে। মোদ্দাকথা তারাই দেশ পরিচালনা করবে। সেভাবেই তাদের গড়ে উঠতে হবে।’

স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীশিশুদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে তোমাদের। তোমরাই গড়ে তুলবে আগামী দিনের বাংলাদেশ। ইনশাল্লাহ এই বাংলাদেশ হবে দক্ষিণ এশিয়ার শান্তিপূর্ণ উন্নত সমৃদ্ধ দেশ।’ বাবা-মা ও শিক্ষকদের কথা শুনতে, নিয়ম-শৃঙ্খলা মেনে চলতে এবং সুন্দরভাবে জীবনযাপন করার উপদেশ দেন তিনি।

অন্য খবর  বিজ্ঞান গবেষণায় সরকার সব সময় পাশে আছে; প্রধানমন্ত্রী

শিক্ষক ও অভিভাবকদের শিশুদের মাদক, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদের কুফল সম্পর্কে জানাতে আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘এসবের হাত থেকে শিশুদের রক্ষা করতে হবে। সব সময় লক্ষ রাখতে হবে সন্তান কোথায় যায়, কার সঙ্গে মেশে, কীভাবে মেশে। সবাই যাতে লেখাপড়া, খেলাধুলা, শরীরচর্চার দিকে মনোযোগ দেয় সেদিকে লক্ষ রাখতে হবে। যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে আমাদের সন্তানরা যেন এগিয়ে যেতে পারে সেদিকে লক্ষ রেখেই আমরা কাজ করে যাচ্ছি। আজকের শিশু আগামী দিনে এ দেশের কর্ণধার।’

স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীঅনুষ্ঠানে শুদ্ধস্বরে জাতীয় সংগীত পরিবেশন করতে অনুষ্ঠিত প্রতিযোগিতায় উত্তীর্ণদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি শিশু-কিশোরদের কুচকাওয়াজ পরিদর্শন করেন। রাজধানীর বিভিন্ন স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থীরা কুচকাওয়াজ করে প্রধানমন্ত্রীকে অভিবাদন জানান। শিশুদের পরিবেশনায় মুগ্ধ হন প্রধানমন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ২৪ বছরের সংগ্রাম এবং ৯ মাসের মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে। দেশের মানুষ উন্নত জীবন পাবে, ক্ষুধা এবং দারিদ্র্যমুক্ত থাকবে এ লক্ষ্য নিয়েই দেশ স্বাধীন হয়েছিল। এটা ছিল জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন।

Comments

comments